ঢাকা : ২৯ মার্চ, ২০১৭, বুধবার, ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

‘পাকিস্তান শান্তিপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখতে চায়’

full_561320459_1475846892

সাম্প্রতিক উত্তেজনা সত্ত্বেও ভারত ও পাকিস্তানের সশ্রস্ত্র বাহিনীর মধ্যে যোগাযোগের সব পথ খোলা রয়েছে। বার্তা সংস্থা জিনহুয়ায় দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের মহাপরিচালক আসিম বাজওয়া একথা বলেন।

তিনি জানান, ভারত ও পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনীর হটলাইনসহ সব ধরনের যোগাযোগের পথ খোলা রয়েছে। নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর উভয়দেশের মিলিটারি অপারেশনের মহাপরিচালকরা (ডিজিএমও) পরস্পরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন।

বাজওয়া বলেন, এ অঞ্চলের সব দেশের সঙ্গে পাকিস্তান শান্তিপূর্ণ প্রতিবেশীসূলভ সম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। একে তিনি পাকিস্তানের নীতি বলে অভিহিত করে বলেন, দেশটির রাজনৈতিক সরকারেরও নীতি এটি। এ ছাড়া এই নীতি অনুসরণ করে থাকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠান।

নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর বিদ্যমান অস্ত্রবিরতি ২৯ অক্টোবর ভারত লঙ্ঘন করে বলে অভিযোগ করে বলেন, পরে তারা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার দাবি করে। কিন্তু তা একেবারে ভুয়া। তিনি বলেন, ‘আমরা এলাকাটির সবকিছু খুঁজে খুঁজে দেখে ওই ধরনের কোনো আলামত পাইনি। অবশেষে আমরা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি যে ভারতীয় অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যা।’

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের উড়িতে ভারতীয় একটি সামরিক ঘাঁটিতে ১৮ সেপ্টেম্বরের সন্ত্রাসী হামলার পর দুই দেশের সম্পর্ক একেবারে তিক্ত হয়ে ওঠে। ওই হামলায় প্রায় ২০ ভারতীয় সৈন্য নিহত হয়।

ভারত অভিযোগ করে, পাকিস্তান সমর্থিত সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালিয়েছে। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা অস্ত্রে পাকিস্তানের চিহ্ন রয়েছে। ভারতীয় প্রচারমাধ্যমগুলো এর বিরোধিতা করে। ফলে ভারতীয় ডিজিএমও এই অভিযোগ থেকে পিছু হটে আসে।

তিনি জানান, ভারত ও পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনীর হটলাইনসহ সব ধরনের যোগাযোগের পথ খোলা রয়েছে। নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর উভয়দেশের মিলিটারি অপারেশনের মহাপরিচালকরা (ডিজিএমও) পরস্পরের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন।

বাজওয়া বলেন, এ অঞ্চলের সব দেশের সঙ্গে পাকিস্তান শান্তিপূর্ণ প্রতিবেশীসূলভ সম্পর্ক বজায় রাখতে চায়। একে তিনি পাকিস্তানের নীতি বলে অভিহিত করে বলেন, দেশটির রাজনৈতিক সরকারেরও নীতি এটি। এ ছাড়া এই নীতি অনুসরণ করে থাকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠান।

নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর বিদ্যমান অস্ত্রবিরতি ২৯ অক্টোবর ভারত লঙ্ঘন করে বলে অভিযোগ করে বলেন, পরে তারা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার দাবি করে। কিন্তু তা একেবারে ভুয়া। তিনি বলেন, ‘আমরা এলাকাটির সবকিছু খুঁজে খুঁজে দেখে ওই ধরনের কোনো আলামত পাইনি। অবশেষে আমরা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি যে ভারতীয় অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যা।’

ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরের উড়িতে ভারতীয় একটি সামরিক ঘাঁটিতে ১৮ সেপ্টেম্বরের সন্ত্রাসী হামলার পর দুই দেশের সম্পর্ক একেবারে তিক্ত হয়ে ওঠে। ওই হামলায় প্রায় ২০ ভারতীয় সৈন্য নিহত হয়।

ভারত অভিযোগ করে, পাকিস্তান সমর্থিত সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালিয়েছে। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা অস্ত্রে পাকিস্তানের চিহ্ন রয়েছে। ভারতীয় প্রচারমাধ্যমগুলো এর বিরোধিতা করে। ফলে ভারতীয় ডিজিএমও এই অভিযোগ থেকে পিছু হটে আসে।

এ সম্পর্কিত আরও

Best free WordPress theme

Check Also

অভিনেতা মিজু আহমেদ মারা গেছেন

চলচ্চিত্রের বর্ষীয়ান অভিনেতা মিজু আহমেদ আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। ট্রেনে দিনাজপুর যাওয়ার …