ঢাকা : ২৯ জুন, ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ৪:৩১ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

শেষের দূর্দশা কাটাতে একাদশে ফিরছেন নাসির !

nasir-hossain
 
জাহিদুল ইসলাম, বিডি টয়েন্টিফোর টাইমস : ২৭১/৪ থেকে ২৮০/১০! এমন ম্যাচও হারা যায়? যে ম্যাচটি জেতার কথা ছিলো হেসে খেলে। কম করে হলেও ৬ ওভার হাতে রেখে। সে ম্যাচটিই কিনা হেরে গেল বাংলাদেশ। ভালো একটি পার্টনারশিপ ভাঙতেই পারে। তাই বলে ৭/৮/৯ নস্বারে যারা ব্যাট করেন তারা সবাই মিলেও কি টেনে টুনে ২০-২৫ টা রান করার যোগ্যতা রাখেন না? এমন দৃশ্য এখন খুব ঘন ঘনই দেখা যাচ্ছে।
৮ নম্বরে ব্যাট করতে আসা মাশরাফি তার সোনালী দিন ফেলে এসেছেন। ৯ নম্বরে মোশাররফ রুবেল কি আর সোহাগ গাজীর মত পারেন! অাগে ৭ নম্বরে নাসির খেলতেন। ৮ এ গাজী, ৯ এ মাশরাফিকে নামতে হতো। এখন নাসির-গাজী কেউ নেই। তাই লেজের শক্তিও নেই আগের মত। যেকারণে ৬ উইকেটের পরই নামতে হচ্ছে মাশরাফিকে। শেষের দিকের এই দুর্দশা কাটাতে আর উপেক্ষা করতে পারেব না কোচ-অধিনায়ক এবং টিম ম্যানেজমেন্ট। ফেরাতে যাচ্ছেন দি ফিনিশার নাসির হোসনেকে। এমটাই বাতাসে গুঞ্জন। তবে সেটা অনেক বেশি করে চাচ্ছেন টাইগার সমর্থকরা। সেটা হলে পরের ম্যাচেই একাদশে ফিরবেন নাসির হোসেন।
ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে সাকিব আউট হওয়ার পর মাত্র ১৭ রানের মধ্যে ছয় উইকেট হারিয়ে ইংলিশদের জয় উপহার দিল বাংলাদেশ। ম্যাচটা যখন হেসে খেলে জিতার কথা সে ম্যাচেই কিনা সাকিব আল হাসানের বিদায়ের পর অবিশ্বাস্যভাবে হেরে গেল বাংলাদেশ। হারের ময়না তদন্তে বের হয়ে এসেছে আসল কারণ। দলে নেই কোন ফিনিশার। ২০১২ সালের এশিয়া কাপের আগেও কিন্তু টাইগাররা খুবই সাধারণ একটি দল ছিলো। সেখানে ফিনিশার হিসেবে নাসির হোসেন যোগ হওয়াতেই বদলে যায় টাইগাররা। প্রতিটা ম্যাচে সাকিব-তামিম মুশফিকদের গড়ে দেয়া ভীতটাকে কাজে লাগিয়ে টাইগারদেরকে ফিনিশিং টাচে জয়ের বন্দরে নিয়ে গেছেন নাসির হোসনে। এর পর কিছুটা বাজে ফর্মে থাকলেও কোচ-অধিনায়ক বদলে বদলে গেল তার একাদশে সুযোগ পাওয়াটাও।
 
এই তো গেল প্রিমিয়ার লিগে বেশ ভালো ফর্মে থেকে অনেক রান করেছেন, আফগান সিরিজের আগে প্রস্তুতি ম্যাচ গুলোতেও রান করেছেন নাসির। সবশেষ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচেও হেসেছিলো নাসিরের ব্যাট। কিন্তু তাতেও লাভ হয় নি। বুড়ো মশাররফ রুবেলকে খেলালেন তবু নাসিরকে সুযোগ দিলেন না। অথচ এই ম্যাচটিতেই হারের পর একজন নাসিরকে সবচেয়ে বেশি মিস করল বাংলাদেশ।
 
ফিনিশিংয়ে কবে বাংলাদেশ দলে নাসিরের চেয়ে ভালো কোন ক্রিকেটার পেয়েছেন। কোচের গোড়ামিতে সেই নাসিরকে দিন-দিন বেঞ্চ লিজেন্ড বানানো হচ্ছে। বাংলাদেশ দলের অন্যতম সেরা এই ফিল্ডার দলে থাকলে নিশ্চিত ভাবেই টাইগারদের ফিল্ডিংটা আরো শক্তিশালী হয়ে যায়। সেখানে তাকে অক্রিকেটিয় কারণে বসিয়ে রাখা কেবল প্রতিভার অপচয়ই নয় বরং অন্যায়। সেটা যতটা নাসিরের সাথে তার চেয়ে অনেক বেশি বাংলাদেশের সাথে।
তাই যারা দল নির্বাচনে থাকেন তাদেরে প্রতি অনুরোধ দয়াকরে বাংলাদেশের সংবিধানের ১৯ নং অনুচ্ছেদটি পড়বেন। সেখানে সুযোগের সমতার কথা বলা হয়েছে। কারও প্রতি ব্যাক্তিগত সম্পর্কের জের ধরে জাতীয় স্বার্থের জন্য বঞ্চিত করা সম্পূর্ন অন্যায় এবং সংবিধান পরিপন্থী। কারও যদি সুযোগটা প্রাপ্য হয় সেটা আপনি ক্ষমতার অপব্যবহার করে তাকে বঞ্চিত করতে পারেন না। এখানে কোনভাবেই ব্যক্তিগত ভালো-লাগা খারাপ লাগা কারণ হিসেবে কাজ করাটাও দু:খজনক। সুযোগরে অসমতা দেখা গিয়েছে এনামুল হক বিজয়ের বেলাতেও। 
 

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

কীভাবে বেঁচে ফিরলাম বলতে পারছি না :- রাজ্জাক

স্পোর্টস ডেস্ক:- ‘কীভাবে বেঁচে গেছি, জানি না। এ রকম দুর্ঘটনা হলে মানুষ বাঁচতে পারে ভাবলে …

আপনার-মন্তব্য