Mountain View

নিশ্চুপ খালেদা, হতাশ নেতাকর্মী

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ১৩, ২০১৬ at ৭:২৭ অপরাহ্ণ

গত ২২ সেপ্টেম্বর পবিত্র হজ পালন ও বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে বিশেষ বৈঠক শেষে দেশে ফিরেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। প্রায় এক মাস আগে দেশে ফিরলেও এখনও নিশ্চুপ রয়েছেন বিএনপি প্রধান। তবে খালেদা জিয়ার এই নিরবতায় অনেকটাই হতাশগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন দলীয় নেতাকর্মীরা।1362473655_khaleda-zia-370x290

দলীয় নেতাকর্মীদের দাবি, সৌদি আরবে তারেক রহমানের সঙ্গে বৈঠক করে দেশে ফিরে দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন খালেদা জিয়া। পরে জোট নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে আগামী ডিসেম্বরের পর নিজেই মাঠে নাববেন বিএনপি চেয়ারপারসন। তবে এখন পর্যন্ত দলীয় ফোরামের কোন ধরনের বৈঠক ডাকেনি তিনি। এতে দলের অনেক নেতাকর্মী হতাশ বলে জানা গেছে।

এসব নেতারা মনে করেন, এখনও যদি দলের সিনিয়র নেতারা রাজনৈতিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত না নেন এবং মাঠে না নেমে এই সরকারের সকল অন্যায় অত্যাচারকে মোকাবেলা না করেন এবং সরকারের কাছ থেকে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন আদায় করতে না পারেন। তাহলে অতি শীঘ্রই বিএনপি নামক দলটিকে নিঃশেষ করে দিবে সরকার। এটা বুঝেও সিনিয়র নেতাদের বসে থাকা নিছক তামাশা বলেই মনে করেন মাঠের নেতাকর্মীরা।

দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা বিএনপি নেতাকর্মীরা এমনিতেই হতাশ। এরপর দলের সিনিয়র নেতাদের আচরণে অনেকেই ক্ষুব্ধ ও হতাশ। মাঠের জুনিয়র নেতাকর্মীরা বিএনপির বর্তমান দৈন্য দশার জন্য দলের সিনিয়র নেতারেই দায়ী করছেন। তবে সাংগঠনিক নানান বাধ্য বাধকতার কারণে দলের এসব নেতারা সিনিয়র নেতাদের সরাসরি কিছু বলতে পারছেন না এবং বলতে চাইছেন না। তবে এসব নেতাদের মধ্যে বেশ ক্ষোভ রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঢাকা মহানগর বিএনপি ও দুটি জেলার একাধিক নেতা বলেন, বিএনপির সিনিয়র নেতাদের ভুলের কারণে বিএনপির বর্তমানে দুর্বস্থা। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে না গিয়ে বিএনপি নিময়তান্ত্রিক রাজনৈতিক পথ হারিয়ে ফেলেছে। আর তার খেসারত এখন সবাইকে দিতে হচ্ছে।

এসব নেতাদের দাবি, বিএনপি নির্বাচনে গেলে, শেখ হাসিনা ক্ষমতা প্রয়োগ করলেও বিএনপি ১০০টির বেশি আসন লাভ করতো।আর বিএনপির এক’শ প্রতিনিধি জাতীয় সংসদে থাকলে সরকার কোনদিনও বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর হামলা-মামলা, জেল-জুলুম ও গুলি চালাতে পারতো না। সিনিয়র নেতাদের ভুলের কারণে এখন পুরো বাংলাদেশে সরকার দলীয়রা আদিপাত্য বিস্তার করে বিএনপিকে ধীরে ধীরে ধ্বংস করে দিচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য লে. জে.(অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। দেশের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় দলের প্রতিষ্ঠা থেকে বিএনপি গণতন্ত্র রক্ষায় চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বিএনপি দেশের সকলকে ঐক্যবদ্ধ করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে এবং যাবে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের নেতৃত্বে দেশের সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের গণতন্ত্র রক্ষা করবে। আর এর জন্য সময় এবং সুযোগের অপেক্ষা করতে হবে। কারণ সরকার দেশের মানুষকে ভয় দেখিয়ে রাখছে। তবে এ অবস্থা বেশি দিন চলতে পারে না।

এ সম্পর্কিত আরও