ঢাকা : ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, শুক্রবার, ১:৪৮ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

ইতিহাসে কেউ যা পারেনি এমন একটি বিশ্বরেকর্ড করেছেন সাকিব

ইতিহাসে কেউ যা পারেনি এমন একটি বিশ্বরেকর্ড করেছেন বাংলাদেশের সাকিব

স্পোর্টস ডেস্ক : বর্তমান সময়ের অল-রাউন্ডারদের মধ্যে সাকিব নিশ্চিতভাবে সেরাদের একজন। পাশাপাশি সর্বকালের সেরা অল-রাউন্ডারের তালিকাতেও সাকিব থাকবেন অনায়াসে। তবে এটা নিছক বিবৃতি নয়, এমনটা বলার পিছনে যথেষ্ঠ কারণ আছে।

একদিনের ক্রিকেটে ১০০০ রান ও ১০০ উইকেট নেয়া খুব বেশি বিরল নয়। ৬০ জনের মতো ক্রিকেটার এই যুগল করতে সম্পন্ন হয়েছেন। তবে এই রেকর্ড করার প্রথম ব্যক্তি হলেন ইয়ান বোথাম। ১৯৮৫ সালে মাত্র ৭৫ ম্যাচেই তিনি এই রেকর্ড করেন।

এর চেয়ে দ্রুত এই রেকর্ড করতে পেরেছেন ৪ জন ক্রিকেটার। ভারতের ইরফান পাঠান মাত্র ৭৪ ম্যাচেই এই রেকর্ডের মালিক হোন। অন্যদিকে দক্ষিন আফ্রিকার ল্যান্স ক্লুজনারের লেগেছিল ৭০ ম্যাচ। পাকিস্তানের আব্দুল রাজ্জাক এই যুগল সম্পন্ন করেছিলেন ৬৯ ম্যাচে।

তবে সবচেয়ে দ্রুত সময়ে এই রেকর্ডের হোন মালিক দক্ষিন আফ্রিকার শন পোলক। যিনি মাত্র ৬৮ ম্যাচেই ১০০০ রানের পাশাপাশি নিয়েছিলেন ১০০ উইকেট। তবে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে এই রেকর্ড করেছেন সৌরভ গাঙ্গুলী ও তিলকারাত্নে দিলশান। তাদের দুই জনেরই লেগেছিল ৩১১ ম্যাচ।

অন্যদিকে একই সাথে ২০০০ রান ও ২০০ উইকেটের কীর্তি খুব বেশি খেলোয়াড়ের নেই। মাত্র ১৩ জন খেলোয়াড় এমন রেকর্ডের মালিক হয়েছেন। ভারতের প্রথম বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক কপিল দেভ প্রথম এই রেকর্ড করেন। তবে সবচেয়ে দ্রুততম সময়ে এই রেকর্ডের মালিক হয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট সুপারস্টার সাকিব আল হাসান। মাত্র ১৫৬ ম্যাচেই তিনি এই যুগল সম্পন্ন করেন।

সাকিবের নিচে আছেন হিথ স্ট্রিক যিনি ১৬২ ম্যাচে করেছিলেন এই রেকর্ড। ক্রিকেটের ইতিহাসে কেউ যা পারেনি এমন নতুন একটি বিশ্বরেকর্ড করেছেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান।

একই সাথে ৩০০০ রান ও ৩০০ উইকেট এমন কীর্তি করেছেন মাত্র ৪ জন খেলোয়াড়। শন পোলক (২৮০ ম্যাচে), ওয়াসিম আকরাম (২৮৯ ম্যাচে), শহিদ আফ্রিদী (৩১৪ ম্যাচে) ও সনাথ জয়সুরিয়া (৩৯৭ ম্যাচে)।

কিন্তু সাকিবের পরিসংখ্যান অনুযায়ী পঞ্চম ক্রিকেটার হিসেবে এই ক্লাবে প্রবেশ করার যথেষ্ঠ সুযোগ রয়েছে। ২৯ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারের একদিনের ক্রিকেটে রানের সংখ্যা ৪৩৯৮। অন্যদিকে বল হাতে পেয়েছেন ২০৬ টি উইকেট। ৩০০ উইকেট পেতে আর প্রয়োজন ৯৪ টি উইকেট।

সবচেয়ে দ্রুত সময়ে ৩০০ উইকেট ও ৩০০০ রানের রেকর্ডটি এখনো আছে শন পোলকের দখলে। সাকিবের সেই বিরল ক্লাবে প্রবেশ করতে আরো প্রয়োজন ৯৪ টি উইকেট। তবে দ্রুততম রেকর্ডের অধিকারী হতে হলে ১২২ ম্যাচে পেতে হবে এই ৯৪ টি উইকেট। সাকিবের উইকেট নেয়ার স্ট্রাইকরেটের উপর নজর রাখলে এটা অনুমেয় যে, সুস্থ মতো খেলতে পারলে অনেক সহজেই এই অনন্য রেকর্ডের মালিক হতে পারবেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান।-বিডি ক্রিকটিম

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

বিপিএলে কপাল খুলল মিলসের

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ-বিপিএল কপাল খুলে দিয়েছে ইংলিশ পেসার টাইমাল মিলসের। বাঁহাতি এই পেসার ভারতের বিপক্ষে …

Mountain View