ঢাকা : ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, রবিবার, ১:৫৪ পূর্বাহ্ণ
সর্বশেষ
রামোসই বাঁচালেন রিয়াল মাদ্রিদকে রাজধানীতে শিক্ষকের অমানবিক নির্যাতনে শিশু শিক্ষার্থী আহত মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বললেন ‘স্বপ্ন দেখা ভালো’ এখনো বেঁচে আছি, এটাই গুরুত্বপূর্ণ : প্রধানমন্ত্রী আলাদা বিমান কেনার মতো বিলাসিতা করার সময় আসেনি: প্রধানমন্ত্রী চলছে স্প্যানের লোড টেস্ট দৃশ্যমান হতে চলেছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হতে পারে! ১৭ বছর বয়সী আফিফ নেট থেকে মাঠে অত:পর গেইলদের গুড়িয়ে দিলেন (ভিডিও) রংপুর জেতায় ছিটকে গেলো কুমিল্লা-বরিশাল আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইরাকে নিরাপত্তা বাহিনীর ১৯৫৯ সদস্য নিহত
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

বিচারক হত্যা মামলার আসামি জেএমবি নেতা আসাদুলের ফাঁসি আজ

received_1783856748549313

মো.শরিফুল ইসলাম বাপ্পিঃ২০০৫ সালে ঝালকাঠির দুই বিচারক হত্যা মামলায় জেএমবির নেতা আসাদুল ইসলাম ওরফে আরিফের ফাঁসি কার্যকর হবে আজ ।

খুলনা জেলা কারাগারে তার ফাঁসি কার্যকর করা হবে বিষয়টি নিশ্চিত করে খুলনা জেলার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. নূর-ই-আলম বলেন, ফাঁসি কার্যকরের সব প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন করা হয়েছে।আজ যেকোন সময় ফাঁসি কার্যকর করা হবে ।

আসাদ ২০০৮ সাল থেকে খুলনা জেলা কারাগারে রয়েছেন। জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) জঙ্গিদের আত্মঘাতী সিরিজ বোমা হামলায় ২০০৫ সালের ১৪ নভেম্বর ঝালকাঠির দুই বিচারক নিহত হন। ওই দিন সকাল নয়টার দিকে সরকারি বাসা থেকে জেলা জজ আদালতে যাওয়ার পথে দুই বিচারককে বহনকারী মাইক্রোবাসে হামলা চালানো হয়। হামলায় ঘটনাস্থলেই মারা যান জ্যেষ্ঠ সহকারী জজ সোহেল আহম্মেদ এবং বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান জ্যেষ্ঠ সহকারী জজ জগন্নাথ পাঁড়ে। আহত অবস্থায় ধরা পড়েন হামলাকারী জেএমবির সদস্য ইফতেখার হাসান আল মামুন।

পরে জেএমবির অন্যান্য শীর্ষ নেতারা আটক হন। জঙ্গিদের ঝালকাঠি এনে জেলা জজ আদালতে চাঞ্চল্যকর এ মামলার বিচারকাজ চলে। ২০০৬ সালের ২৯ মে ঝালকাঠির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ রেজা তারিক আহম্মেদ জেএমবির শীর্ষ নেতা শায়খ আবদুর রহমান, সিদ্দিকুল ইসলাম ওরফে বাংলাভাই, শায়খের ভাই আতাউর রহমান সানি, জামাতা আবদুল আউয়াল, ইফতেখার হোসেন মামুন, খালেদ সাইফুল্লাহ (ফারুক) ও আসাদুল ইসলাম আরিফকে ফাঁসির আদেশ দেন। দেশের বিভিন্ন কারাগারে ২০০৭ সালের ২৯ মার্চ ছয় জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়।

ছয় শীর্ষ জঙ্গির ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর ২০০৭ সালের ১০ জুলাই এ মামলায় আরিফ ময়মনসিংহ থেকে গ্রেপ্তার হন। ওই বছর জুলাই মাসে হাইকোর্টে আপিল করেন তিনি। শুনানি শেষে হাইকোর্ট তাঁর মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখেন। পরে আপিল বিভাগেও তার সাজা বহাল থাকে।

উল্লেখ্য ২০০৪ সালের ১০ মে সর্বশেষ খুলনা জেলা কারাগারে শীর্ষ সন্ত্রাসী এরশাদ শিকদারের ফাঁসি কার্যকর করা হয়।এর পর এখন পর্যন্ত খুলনা জেলা কারাগারে আর কোন ফাঁসি কার্যকর হয়নি ।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

3-12-16-1

সুন্দরবনের পর্যটকবাহী লঞ্চের আগুন নিয়ন্ত্রনে: তদন্ত কমিটি গঠন. পর্যটকরা নিরাপদে

বাগেরহাট প্রতিনিধি :বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের হাড়বাড়িয়া বন অফিসের সামনে নোঙ্গর করে থাকা পর্যটকবাহী …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *