ঢাকা : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, মঙ্গলবার, ৬:২০ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ > অন্যান্য > প্রাণবন্ত হয়ে উঠছে বাহরাইনে বাংলাদেশ স্কুল

প্রাণবন্ত হয়ে উঠছে বাহরাইনে বাংলাদেশ স্কুল

baharain

বিডি টুয়েন্টিফোর টাইমস ডেস্ক: প্রায় সাত বছর পর বাহরাইনের ‘বাংলাদেশ স্কুল’ নিয়ে সিদ্ধান্তে পৌঁছালো স্কুল কমিটি, দূতাবাস ও স্থানীয় কমিউনিটি। ১৯৯৪ সালে স্কুলটির গঠন প্রক্রিয়া শুরু হলেও বাহরাইনের বাংলাদেশ স্কুলের আনুষ্ঠানিক পাঠদান ও কার্যক্রম শুরু হয় ১৯৯৬ সালে।

প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রচেষ্টায় শিক্ষার্থীদের কলরবে দারুণ জমে উঠে বিদেশের মাটিতে বাংলার আলোর বাতিঘর। বছর-বছর শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়তেই থাকে। ফলে বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে বাহরাইনের রাজা কিং হামাদ বিন ঈসা আল খালিফা ২০০৫ সালে বাংলাদেশ স্কুলের জন্য কয়েক কোটি টাকা মূল্যের ১৮৩ শতাংশ জমি দান করেন।

পরবর্তীতে ২০১০ সালে ঘটনাচক্রে স্কুলটির দাতা গোষ্ঠী বাংলাদেশ ক্লাব বন্ধ হয়ে গেলে নানা আইনি জটিলতায় ও তৎকালীন রাষ্ট্রদূতের সিদ্ধান্তহীনতার কারণে স্কুলের লাইসেন্স ফিরে পাওয়া সম্ভব হয়নি। ফলে স্কুল নিয়ে দেখা দেয় নানা জটিলতা।

মেজর জেনারেল কে এম মমিনুর রহমান ২০১৪ সালের জুলাইতে বাহরাইনের রাষ্ট্রদূত হিসেবে যোগদানের পর পরই স্কুলের পরিচালনা কমিটি, অভিভাবক ও কমিউনিটি নেতাদের নিয়ে দফায়-দফায় বৈঠক করে একটি সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর চেষ্টা করেন। তার চেষ্টায় সম্প্রতি সব জটিলতা কেটে গেছে। বাংলাদেশ স্কুল ফের প্রাণ-চঞ্চল হয়ে উঠছে।

রাষ্ট্রদূত দূতাবাসের মিনিস্টার মেহেদী হাসান, সচিব (শ্রম) মহিদুল ইসলাম, আহলি ইউনাইটেড ব্যাংকের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও বাংলাদেশ স্কুলের সাবেক চেয়ারম্যান শাফকাত আনোয়ার, স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আইনূল হক, ইউনিভার্সিটি অব বাহরাইনের অর্থনীতি ও ফাইন্যান্স বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ওমর ফারুক, বাংলাদেশ সমাজের সভাপতি ফজলুল করিম বাবলু, প্রকৌশলী মো. নুরুন নবী, স্থানীয় আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা প্রকৌশলী আবুল কালাম আজাদসহ অন্যদের প্রচেষ্টা ও আন্তরিকতায় বাংলাদেশ স্কুল প্রাণ ফিরে পাচ্ছে।

বাংলাদেশ স্কুলের সাবেক চেয়ারম্যান কেফায়েত উল্লাহ মোল্লা বাংলানিউজকে বলেন, বাহরাইনের বাংলাদেশ কমিউনিটি সঠিক সময়ে নির্ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এবার প্রবাসের বুকে মাথা তুলে দাঁড়াবে বাংলার বিদ্যাপিঠ।

বাংলাদেশ স্কুলের চেয়ারম্যান প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দীন বাংলানিউজকে বলেন, এতো দিনের অমীমাংসিত বিষয়ে আমরা এখন সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি। অনেকদিন পরে হলেও বাংলাদেশিরা প্রমাণ করেছে জাতীয় ইস্যুতে তারা সর্বদা ঐক্যবদ্ধ।

এ সম্পর্কিত আরও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *