ঢাকা : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, বৃহস্পতিবার, ১০:০০ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

সুযোগ থাকলে মাঠে নেমে খেলতাম: সালাউদ্দিন

বাফুফে ভবনের বাইরে তখন চলচে সালাউদ্দিন বিরোধী আন্দোলন। আর ভিতরে বাফুফের কনফারেন্স রুমে ভুটান ব্যর্থতা নিয়ে কথা বলছে দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ ব্যক্তি। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখন বাংলাদেশের ফুটলবল ছুটছে তলানীর পথে।
full_1798390255_1476718340
সর্বশেষ দেশের ফুটবলের সর্বশেষ পেরেকটি মেরেছেন দেশের ফুটবল কর্তারা ভূটানের কাছে ৩-১ গোলে পরাজিত হয়ে। অথচ এই দলটিকে এমেলীদের অগ্রজরা বলে কয়ে হারাতেন। কিন্তু সেই দলটি এখন হারছে সালাউদ্দিন-সালাম মুর্শেদীদের মতো তারকা ফুটবলারদের ক্ষমতায়নে। জনে মনে প্রশ্ন তাহলে ফুটবলের সিংহাশনে বসে কি করছেন সালাহউদ্দিন গংরা! এরই প্রতিবাদে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে দেশের ফুটবল ভক্তরা।

গতকাল তারই আরেকটি চিত্র দেখা গেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ভবনের সামনে। ফুটবল সমর্থকদের বিক্ষোভ মিছিল করলেন। দাবী তুলেছেন তারা বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনের পদত্যাগের। এর জন্য অবস্থান ধর্মঘটও করেছেন সমর্থকরা। তারা আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন সালাউদ্দিনের সিংহাসনের গত আট বছরেও আটটি খেলোয়াড় না বেরিয়ে আসায়।

ফুটবল ভক্তদের এমন হাহাকার দেখেই সালাউদ্দিন, সালাম মুর্শেদীরা বসেছিলেন সংবাদ সম্মেলনে। ফুটবলের এই দুর্দিনে দুঃখ প্রকাশ করা ছাড়া তার কিছুই ছিলো না। তবে পদত্যাগ করার কোনো ইচ্ছায় তার নেই। ভুটানের সঙ্গে হারের পর এই প্রথম গণমাধ্যমে মুখ খুললেন কাজী সালাউদ্দিন। ভুটানের সঙ্গে এমন বিপর্যয় ঘটবে, সেটা নাকি তিনি আগেই জানতেন, ‘অবশ্যই এটা আমাদের ফুটবলের জন্য খুব দুঃখের সময়।’

‘আপনারা এই বাজে পারফরম্যান্স দেখে যত কষ্ট পেয়েছেন, আমরাও ততটাই পেয়েছি। তবে আমরা এটা নিয়ে কাজ করছি। এটা নিয়ে আমরা চিন্তিত। আমি এই হার আগেই অনুমান করেছিলাম। কারণ জাতীয় দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স, ফুটবলারদের পারফরম্যান্স ও লিগের কাঠামো দেখে আমার মনে হয়েছিল ভুটানে আমরা জিতব না।’

জাতীয় দলের জন্য যা যা সুযোগ -সুবিধা সবই দিয়েছেন বলে মনে করেন তিনি। তারপরও দলের এমন পারফরম্যান্স দুঃখজনক বলেই জানালেন, ‘বাফুফে কর্মকর্তা হিসেবে আমরা জাতীয় দলের কোচ, ট্রেনিং, আবাসনসুবিধা, সবই দেওয়ার চেষ্টা করেছি। এগুলো নিয়ে কোনো ঘাটতি ছিল না। আমি এটা পারিনি যে আমি নিজে মাঠে গিয়ে খেলে আসব। ওটা পারলে আমি ও সালাম মুর্শেদি গিয়ে খেলে আসতাম। আমাদের দুর্ভাগ্য যে সেটার সুযোগ নেই।’

এই হার থেকেই শিক্ষা নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চান সালাউদ্দিন। ফুটবলার তুলে আনার পুরোনো পরিকল্পনার কথাই নতুন করে বললেন, ‘এত সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার পরও জাতীয় দলের পারফরম্যান্স আশানুরূপ হচ্ছে না। এর মানে শেষ পর্যন্ত আমরা উপলব্ধি করলাম, এই গুটি কয়েক ফুটবলার ভালো খেলার জন্য যথেষ্ট নয়। জানুয়ারি থেকে নতুন কর্মসূচি হাতে নিচ্ছি আমরা। ডিসেম্বরে সোহরাওয়ার্দী কাপ, এরপর হবে শেরেবাংলা কাপ। এ ছাড়া প্রতিবছর অনূর্ধ্ব-১৬ ও অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল লিগ করব।’

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

আপনারা কেউ কী কখনো আম্পায়ারিং করেছেন: স্টুয়ার্ট ল

বিপিএলের এবারের আসরে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচটি একটু বেশিই আলোচনার তৈরি করেছে। মাঠে সাকিব আল হাসানের …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *