ঢাকা : ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, শুক্রবার, ৯:৫২ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ঋণ নেবে সরকার

abul

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ঋণ নিয়ে তা মেগা প্রকল্পে ব্যবহার করা হবে। এই বছর থেকে এটা শুরু হবে কিনা তা বলা যাচ্ছে না। তবে আগামী বছর থেকে সুনিশ্চিতভাতে তা ব্যবহার করা হবে। আর বাজেটেও এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট উল্লেখ থাকবে।’

আজ (মঙ্গলবার) রাজধানীতে ‘বাংলাদেশ ব্যাংক রেমিটেন্স অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ হলে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন ডিপার্টমেন্ট’। সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্সের ফলে আমাদের রিজার্ভের পরিমাণ ৩১ বিলিয়ন ছাড়িয়েছে। এখন এই অর্থের যথাযথ ব্যবহারের সময় এসেছে। তাই আমরা ভাবছি, এটাকে কিভাবে বিনিয়োগে নিয়ে আসা যায়। আমরা চিন্তা করেছি, এই রিজার্ভ থেকে ঋণ নেব।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আপনাদের টাকার কোনও ক্ষতি হবে না। ঋণের লভ্যাংশও আপনাদের দেওয়া হবে।’ তিনি বলেন, ‘যারা বিদেশে যান, সংশ্লিষ্ট কাজের ক্ষেত্রে তাদের বিশেষ দক্ষতা নেই। আমরা যদি দক্ষতা দিতে পারি তাহলে দুই দিক দিয়ে সুবিধা হবে। প্রথমত, তাদের আয় বাড়বে, দ্বিতীয়ত, দেশের আয়ও বাড়বে।’

৬৫ হাজার জনশক্তিকে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত করার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, তা ব্যহত করার কোনও পরিকল্পনাই সফল হবে না। হরতাল, ধর্মঘট সমাজ প্রত্যাখ্যান করছে। অর্থনীতি যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে আগামী অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হবে ৭ দশমিক ৩ শতাংশ।’

তৃতীয়বারের মতো আয়োজিত বাংলাদেশ ব্যাংক রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৫ দেওয়া হয় ব্যাংকিং চ্যানেলে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স পাঠানো ২৬ প্রবাসী, বন্ডে বিনিয়োগকারী পাঁচজন এবং চারটি অনিবাসী বাংলাদেশি মালিকানাধীন এক্সচেঞ্জ হাউজকে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে প্রবাসীদের অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি প্রদান এবং ব্যাংকিং চ্যানেলে অধিক পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা পাঠাতে উৎসাহিত করার লক্ষ্যেই আজকের এ আয়োজন। আপনাদের এই অসামান্য অবদানের যে স্বীকৃতি আমরা দিচ্ছি, তা একেবারেই সামান্য।’

প্রবাসীদের হুন্ডির মাধ্যমে টাকা না পাঠানোর আহ্বান জানিয়ে গভর্নর বলেন, ‘হুন্ডির মাধ্যমে টাকা পাঠালে এই অর্থের অংশ চোরাচালান, মাদক ব্যবসাসহ জঙ্গি অর্থায়নে ব্যবহার হয়।’

ডেপুটি গর্ভর এস কে সুর চৌধুরী বলেন, ‘বৈধ চ্যানেলে রেমিট্যান্স পাঠালে তাতে দেশের অনেক উপকার হয়। আর অবৈধ পথে অর্থ পাঠালে তাতে একদিকে দেশের ক্ষতি হয়, অন্যদিকে জঙ্গী অর্থায়ন ও মানি লন্ডারিংয়ের পথে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।’

অনুষ্ঠানে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো. ইউনুসুর রহমান রহমান, জনতা ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুস সালাম, ব্যাংক এশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরফান আলী, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার ব্যাংক লিমিটেডের আবরার এ আনোয়ার, ন্যাশনাল এক্সচেঞ্জ হাউজের চেয়ারম্যান ইদ্রিস ফারাজী, প্রবাসী এসএম ফারুক তমাল, দেওয়ান সাদেক আহসান ও মাহতাবুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

বিপিএল খেলতে এসে নতুন কাণ্ড ঘটালেন গেইল !

মাঠে কিংবা মাঠের বাইরে বরাবরই আমুদে ক্রিস গেইল। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *