‘দুঃখীর হাসিতে শোধ হবে রক্ত ঋণ’

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২০, ২০১৬ at ১২:০৭ পূর্বাহ্ণ

বাংলার দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে বঙ্গবন্ধুর রক্ত ঋণ শোধ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

তিনি বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু রক্ত দিয়ে গেছেন এদেশের মানুষের জন্য। সেই রক্ত ঋণ আমাদের শোধ করতে হবে দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে।’

মঙ্গলবার (১৮ অক্টোবর) সন্ধ্যায় গণভবনে আওয়ামী লীগের ২০তম সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সমন্বয় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সব সময় মাথায় এটাই রাখতে হবে যে বাংলাদেশকে আমাদের ক্ষুধা-দারিদ্র্য মুক্ত সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হবে। এই প্রত্যয় নিয়েই আমাদের এবারের সম্মেলন।’

দারিদ্র্য বিমোচন সরকারের লক্ষ্য উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একটা লক্ষ্যই থাকবে দারিদ্র্যের হার কমিয়ে আনা। তার জন্য সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে আমাদের কাজ করতে হবে। এজন্য সরকারের যতটুকু সময় আছে ততটুকু ভালোভাবে কাজে লাগাতে হবে।’

উন্নয়ন কাজগুলো সরকারের পক্ষ থেকে করার পাশাপাশি দলের পক্ষ থেকেও করার আহ্বান জানান তিনি।

বঙ্গবন্ধু আর্দশ বাস্তবায়নের প্রতিজ্ঞা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এদেশের মানুষ যত বেশি উন্নতি করবে, যত বেশি সুখে শান্তিতে থাকবে তত বেশি বঙ্গবন্ধুর আত্মা শান্তি পাবে।’

আসন্ন আওয়ামী লীগের কাউন্সিল প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আগামী কাউন্সিল আমরা অত্যন্ত সফলভাবে করবো। তার মধ্য দিয়ে নতুন নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে।’

২০২১ সালে মধ্যম আয় এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ গড়ার লক্ষ্য নিয়ে সরকার কাজ করছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ সারা বিশ্বের কাছে উন্নয়নের রোল মডেল মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘এমডিজি গোল যারা বাস্তবায়ন করেছে বাংলাদেশ অন্যতম, এবার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। বাংলাদেশই পারবে সফলভাবে এর বাস্তবায়ন করতে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের উন্নয়ন হবে। লুটেরারা ক্ষমতায় আসলে হবে না। মানি লন্ডারিং করা, লুটপাট করা, এতিমের টাকা মেরে খাওয়া, ঐসব চলতে থাকবে আর হবে অত্যাচার নির্যাতন।’

নানামুখী বাধা অতিক্রম করে তার সরকার উন্নয়ন অব্যাহত রেখেছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশে ও আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে নানা রকম অপবাদ দিয়ে আমাদের ক্ষমতা থেকে সরানোর চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু আমরা বাংলাদেশের জনগণের আস্থা বিশ্বাস অর্জন করেছি। ঝড়-ঝাপটা উপেক্ষা করে জনগণের শক্তিতে বলীয়ান হয়ে আমরা এদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের গতি ধরে রাখতে পেরেছি।’

সভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামসহ দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন

এ সম্পর্কিত আরও