ঢাকা : ২৮ জুলাই, ২০১৭, শুক্রবার, ৪:৪৬ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / জাতীয় / ‘প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে লিপুকে খুন করা হয়েছে’

‘প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে লিপুকে খুন করা হয়েছে’

full_1026902166_1476962087

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আবদুল লতিফ হলের পেছন থেকে মোতালেব হোসেন লিপু নামে এক শিক্ষার্থীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তদন্তের জন্য তার রুমমেট রাজিবুল ইসলাম রাজিবকে আটক করা হয়েছে।

রাজশাহী মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (পূর্ব) আমীর জাফর বলেন, “প্রাথমিকভাবে সবকিছু দেখে মনে হচ্ছে, তাকে খুন করা হয়েছে।”

ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ডু থানার মকিমপুর গ্রামে গিয়ে নিহত লিপুর মায়ের থেকে জানা গেছে, মোতালেব হোসেন লিপু নামের ওই শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দ্বিতীয় বষের্র ছিলেন। তিনি ঝিনাইদহ জেলার হরিণাকুন্ডু থানার মকিমপুর গ্রামের বদর উদ্দিনের ছেলে।

লিপু হলের দোতলায় ২৫৩ নম্বর কক্ষে থাকতেন। বৃহস্পতিবার সকালে হলের নিচতলায় ডাইনিংয়ের পাশে নর্দমায় তার লাশ পাওয়া যায় বলে মতিহার থানার ওসি হুমায়ুন কবির জানান।

উপ-কমিশনার আমীর বলেন, “ওর মাথায় বড় ধরনের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ময়নাতদন্ত করলে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে।”

হল ডাইনিংয়ের কর্মচারী রিনা জানান, ড্রেনে পড়ে থাকা লাশের গায়ে কোনো পোশাক ছিল না।

লতিফ হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক বিপুল কুমার বিশ্বাস বলেন, হলের কর্মচারীরা সকালে নর্দমায় লাশ পড়ে থাকতে দেখে তাকে খবর দেন। পরে তিনি পুলিশকে জানালে তারা এসে লাশ নিয়ে যায়।

লিপুর রুমমেট রাজিবুল ইসলাম রাজিব বলেন, লিপু কোনো রাজনৈতিক সংগঠনে জড়িত ছিলেন না। রাত ১২টার দিকে ও ঘুমানোর জন্য রুমে আসে। আমিও তখন শুয়ে পড়েছি। গভীর রাতে একবার দরজা খোলার শব্দ পেয়েছিলাম। কিন্তু খেয়াল করিনি।

রাজিব আরো জানান, লিপু প্রতিদিন সকালে ব্যায়াম করতে বের হতেন। কিন্তু যখন তার লাশ পাওয়া গেল, তখন গায়ে কোনো কাপড় ছিল না।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ছাত্র সত্য সরকার জানান, লিপু বাড়ি থেকে ঘুরে এসে বুধবার হলে ফিরেছিলেন। রাত ৮টার দিকে তাদের দেখা হলে সামনের ইয়ার ফাইনাল পরীক্ষা নিয়ে তাদের মধ্যে কথাও হয়েছিল। তবে সে সময় অস্বাভাবিক কিছু তার চোখে পড়েনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মজিবুল হক আজাদ খান বলেন, ‘পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে। আমরাও দেখছি। ময়নাতদন্তের পর লিপুর মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট হবে।’

এ সম্পর্কিত আরও

আপনার-মন্তব্য