বনদস্যু, জলদস্যু, জঙ্গি কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২০, ২০১৬ at ২:৫৩ অপরাহ্ণ

joloবনদস্যু, জলদস্যু, জঙ্গি কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। আমি শেষবারের মত বলবো এই ধরনের নোংরা কাজ থেকে বিরত থাকুন, না হলে পরিস্থিতি ভালো হবে না। হিংসার পথ ছেড়ে দিয়ে সাধারণ জীবনে ফিরে আসুন। বরগুনায় জলদস্যু সাগর বাহিনীর আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এ আহ্বান জানান।

বৃহস্পতিবার বরগুনা সার্কিট হাউজ ময়দানে র‌্যাব-৮ এর মাধ্যমে সাগর বাহিনীর ১৩ সদস্য আনুষ্ঠানিকভাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে অস্ত্র তুলে দিয়ে আত্মসমর্পণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, বরিশাল বিভাগীয় পুলিশ কমিশনার মো. আকরাম হোসেন, বরগুনা জেলা প্রশাসক ড. বশিরুল আলম, কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের কমান্ডার একরাম হোসেন, বরগুনা পুলিশ সুপার বিজয় বসাক পিপিএম প্রমুখ।

 অনুষ্ঠানে র‌্যাবের মহাপরিচালক বলেন, গডফাদারদের মুখোশ খোলা হবে। মূল হোতাদেরও একই অবস্থা হবে। যারা আজ  সাগরে অর্থ দিয়ে এ ধরনের অপরাধী তৈরি করছেন তারা কেউ রেহাই পাবে না বলেও তিনি হুঁশিয়ারি দেন।

আত্মসমপর্ণকারীরা হলেন জলদস্যু সাগর বাহিনীর প্রধান মো. আলমগীর শেখ ওরফে সাগর, মো. কামরুল ফকির, মো. আব্দুল মালেক, মো. কাদের শেখ, মো. হাফিজুর রহমান শেখ, মো. কবীর সরদার,  মো. দেলোয়ার শেখ, মো. হাসান সরদার, মো. নান্না ফরিক, মো. তৌহিদুল ইসলাম, মো. রাজু শেখ, মো. লিটন হাওলাদার, মো. তরিকুল গাজী।

 তারা আটটি বিদেশি একনলা বন্দুক, তিনটি দেশীয় একনলা বন্দুক, একটি বিদেশি দোনলা বন্দুক, দুটি .২২ বোর বিদেশি এয়ার রাইফেল, চারটি এলজি এবং দুটি দেশীয় কাটা রাইফেলসহ মোট ২০টি দেশি ও বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র। একইসঙ্গে ৫৯৬ রাউন্ড বিভিন্ন প্রকার গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও