Mountain View

মাছ ধরার ট্রলারগুলো মাছ না ধরে ইয়াবা পাচারে ব্যস্ত

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২৩, ২০১৬ at ৭:৫৫ অপরাহ্ণ

বঙ্গোপসাগরের মাছ ধরার ট্রলারগুলো এখন মাছ না ধরে এখন ইয়াবা পাচারে ব্যস্ত রয়েছে। এক্ষেত্রে  মাদক ব্যবসায়ীদের প্রধান রুট হয়ে উঠেছে আনোয়ারা উপকূলীয় এলাকা। রোববার সকালে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম বিভাগীয় আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় উঠে এসেছে এ তথ্য। শুধু বিভাগীয় আইনশৃঙ্খলা কমিটি নয়, বিভাগীয় কোর কমিটি ও টাস্কফোর্স কমিটির বৈঠকেও মাদক, চোরাচালান ও মানবপাচারের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।
বিভাগীয় কমিশনার রুহুল আমীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিভাগীয় পর্যায়ে বিভিন্ন সংস্থার প্রধান ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে উপস্থিত চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার শংকর সাহা জানান, তিনটি সভাতেই মাদক, চোরাচালান ও মানবপাচার নিয়ে আলোচনা হয়েছে।
তিনি বলেন, মাদক ব্যবসার সঙ্গে কারা জড়িত তা খতিয়ে দেখতে একটি টিম কক্সবাজারে তদন্তে যায়। ওই টিমের দেয়া তথ্যমতে মাছ ধরার ট্রলারের জেলেরা মাছ না ধরে মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছেন। বিষয়টি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ে জানানো হয়েছে। মাদক ব্যবসা বন্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে বিভিন্ন সংস্থাকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে শংকর সাহা আরো বলেন, টেকনাফ থেকে মাছ ধরার ট্রলারে করে আশঙ্কাজনকভাবে আসছে মাদক। টেকনাফের অধিকাংশ লোক এই মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। সমুদ্র পথে মানবপাচার প্রায় বন্ধ হলেও মাদক ব্যবসার নিরাপদ রুট হয়ে উঠেছে নৌ-পথ। আনোয়ারা উপকূল দিয়ে মাদক ব্যবসা চলছে। তাই এখানে চলাচলরত মাছ ধরার ট্রলারে নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
আনোয়ারা উপকূল দিয়ে মাদক ব্যবসার বিষয়টি ডিআইজি শফিকুল ইসলামও স্বীকার করে বলেছেন, আনোয়ারা উপকূলে অবস্থানরত মাছ ধরার ট্রলারগুলোকে নজরদারিতে রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন। মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে দেশকে রক্ষা করতে দক্ষিণ চট্টগ্রামের জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালানোর বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View