দ্বিতীয় টেস্টে একাদশে আসছে পরিবর্তন

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২৪, ২০১৬ at ৭:০০ অপরাহ্ণ

1

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে হেরে সিরিজে পিছিয়ে পড়েছে বাংলাদেশ। জয়ের দ্বারপ্রান্তে গিয়েও হেরেছে টাইগাররা। আগামী ২৮ অক্টোবর মিরপুরে দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের বিপক্ষে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড।তবে ওই টেস্টের আগে বাংলাদেশের একাদশ নিয়ে ভাবার প্রয়োজনীয়তা আছে কী? কোনো প্রয়োজনীয়তা আছে কী একাদশ পরিবর্তনের?

চট্টগ্রাম টেস্টের দিকে তাকালে দেখা যায়-বাংলাদেশের স্পিনাররা খুবই ভালো করেছেন। সাকিব আল হাসান, তাইজুল ইসলাম এবং অভিষেক হওয়া মেহেদী হাসান মিরাজই ইংল্যান্ডের ১৮ উইকেট তুলে নিয়েছেন। বাকি একটি উইকেট লাভ করেছেন পেসার কামরুল ইসলাম রাব্বী।বোলাররা ভালো করলেও ব্যাটিংয়ে কিছুটা ঘাটতি আছে বাংলাদেশের। তাছাড়া একাদশে দুইজন পেসারের কেউই বল এবং ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারেননি।

ইংল্যান্ডের এগার নম্বর পর্যন্ত ব্যাট চালাতে সিদ্ধহস্ত। সেখানে বাংলাদেশের ৫-৬টি উইকেট পড়ে গেলেই হুড়মুড় করে উইকেট পড়ে যায়। যা আমরা প্রথম ও শেষ ইনিংসে দেখেছি। প্রথম ইনিংসে শেষ ৫ উইকেট পড়ে মাত্র ২৭ রানে। দ্বিতীয় ইনিংসেও শেষ দিকের ব্যাটসম্যানরা ব্যাট হাতে ভালো করতে পারেনি।তারা যদি উইকেটে টিকে থেকে সাব্বির রহমানকে সঙ্গ দিতেন তাহলেও বাংলাদেশকে হয় তো এই পরাজয় মেনে নিতে হতো না। বাংলাদেশের ওপেনিং, টপ অর্ডার এবং মিডল অর্ডাররা ভালোই করেছেন।

যেহেতু স্পিনাররা ভালো করছেন এবং অধিনায়ক মুশফিকও মিরপুরে স্পিনবান্ধব উইকেট চেয়েছেন তাই স্পিন অলরাউন্ডারের কথা ভাবতে পারে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবি।এক্ষেত্রে একজন পেসার রেখে আরও একজন স্পিন অলরাউন্ডার যিনি ব্যাট হাতেও ব্যাকআপ দিতে পারবেন এমন কাউকে ভাবা যেতে পারে। আর এক্ষেত্রে ওয়ানডে এবং প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো খেলা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে দলে রাখা যেতে পারে।তাছাড়া বলে গতি কম দিয়ে সুইং করাতে পারেন এমন একজন পেসারের কথাও ভাবতে পারে বিসিবি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অবশ্য অনেকেই এমন দাবি করেছেন। কেউ আবার কোনো ফাস্ট বোলার না রাখার কথাও বলেছেন। সেক্ষেত্রে নাসির হোসেনকেও দলে নেয়ার কথা বলেছেন অনেকেই।আতাউর রহমান নামের একজন লিখেছেন, দ্বিতীয় টেস্টেও যদি এমন উইকেট থাকে তাহলে মোসাদ্দেক এবং আল-আমিনকে দলে নেয়া যেতে পারে।সাব্বির রহমান নামের একজন বলেন, শফিউল এবং রাব্বীর বদলে মোসাদ্দেক এবং নাসির হোসেনকে দলে রাখা যেতে পারে।তবে টাইগার ভক্তরা যাই বলুক না কেন সবকিছু নির্ভর করছে উইকেট, নির্বাচক, কোচ অর্থাৎ বিসিবির ওপর।

এ সম্পর্কিত আরও