উদ্বোধনী অনুষ্ঠান না থাকলেও এবারের বিপিএলে প্রতি ম্যাচেই চমক

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২৫, ২০১৬ at ৮:৪৪ অপরাহ্ণ

bpl-20

বিপিএল উদ্বোধন মানেই হৃতিক রোশান, জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ, মমতাজদের নাচ-গানে উত্তাল মঞ্চ। বিপিএল উদ্বোধন মানেই আতশবাজী, লেজারের আলোয় আলোকিত শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম। বিপিএল উদ্বোধন মানেই জমকালো আয়োজনে মুখর দর্শক। গেল ৩ আসর এমনই ছিল বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

কিন্তু এবার দর্শকদের জন্য কিছুটা দুঃসংবাদ বয়ে এনেছে। কেননা ৪ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া বিপিএলের চতুর্থ আসরে বরাবরের মতো এমন চোখ ধাঁধানো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপভোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন দর্শকরা।

বিষয়টি জানিয়েছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য শেখ সোহেল। আজ (মঙ্গলবার) ২৫ অক্টোবর বিপিএলের এবারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে তিনি বলেন, ‘উদ্বোধনী অনুষ্ঠান করতে যে সময়ের প্রয়োজন সেটা ইংল্যান্ডের সিরিজের জন্য আমরা পাচ্ছি না।

সিরিজ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় আমরা ভারতের শিল্পীদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারিনি। আপনারা জানেন ইংল্যান্ড সিরিজ দুটি ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হওয়ায় আমাদর খুবই ব্যস্ত সময় কেটেছে তাই যোগাযোগের করার সময়ই পাইনি।’

অবশ্য উদ্বোধনী অনুষ্ঠান না হলেও দর্শকদের হতাশ হবার কোন কারণ নেই বলে আশ্বস্ত করেছেন শেখ সোহেল। প্রতিদিনই নাকি ম্যাচ বিরতিতে দর্শকদের জন্য থাকছে কনসার্টের আয়োজন।

এ ব্যাপারে তার ভাষ্য, ‘দর্শকদের বিনোদনের জন্য নতুন একটি বিষয় যোগ করছি, সেটা হলো কনসার্ট। দুই ম্যাচের মাঝখানে যে সময়টা থাকবে তখন দেশের বিভিন্ন সংগীত শিল্পীরা মাঠের পাশে মঞ্চে সংগীত পরিবেশন করবেন। এখানে থাকবেন ক্লোজ আপ ওয়ান, চ্যানেল আই সেরা কণ্ঠ থেকে উঠে আসা সংগীত শিল্পীরা। কোনোদিন আবার থাকবে মাকসুদ, চিরকুট, ওয়ারফেজের মতো ব্যান্ডের গান।’

প্রতিদিনের ম্যাচ শেষে রাতে পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে আতশবাজীর ব্যবস্থা থাকবে বলেও নিশ্চিত করেন তিনি। আর টুর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচ শুরুর দুই ঘণ্টা আগে দর্শকদের জন্য বাইরের শিল্পী দিয়ে একটি ‘সেমি-কনসার্টের’ আয়োজনের কথাও জানান শেখ সোহেল।

এ সম্পর্কিত আরও