ঢাকা : ১৯ জানুয়ারি, ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

বাংলাদেশ-ইংল্যান্ডের প্রথম টেস্ট নিয়ে যা বললেন মাশরাফি

6495b6ceca7fdeaa8a3da886a63e6b88x480x320x351

স্পোর্টস ডেস্ক : সপরিবারে এখন কক্সবাজারে মাশরাফি বিন মর্তুজা। তবে ছুটির হুল্লোড়েও টিভিতে দেখেছেন চট্টগ্রাম টেস্টের শেষটা, যা দেখে একাধারে অভিভূত এবং ব্যথিত বাংলাদেশের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মুখোমুখি হয়েছেন এক সাক্ষাৎকারে।

প্রশ্ন : খেলা দেখেছেন?

মাশরাফি বিন মর্তুজা : এমন অবস্থায় খেলা না দেখে থাকা যায়!

প্রশ্ন : পুরো ম্যাচটা যদি সংক্ষেপে বিশ্লেষণ করতে বলি…

মাশরাফি : অসাধারণ! দল ঘোষণা হওয়ার পর সবাই বলছিলেন, এটা কোনো টেস্ট দল হলো? সেই দলটাই কী দুর্দান্ত খেলল। দারুণ একটা টেস্ট ম্যাচ দেখলাম। ছেলেদের ধন্যবাদ পুরোটা সময় ইংল্যান্ডের মতো শক্তিশালী দলের সঙ্গে সমানে পাল্লা দেওয়ার জন্য।

প্রশ্ন : তবু তো সেই হারই জুটল ভাগ্যে!

মাশরাফি : এটাই কষ্টের। আমি নিশ্চিত যারা ড্রেসিংরুমে ছিল, তাদের কষ্টটা আরো বেশি। বাইরে থেকে আমি যতই সান্ত্বনা দেই, এত কাছে এসে হারার কষ্টটা ওদের পোড়াবে। ভাবা যায়, ইংল্যান্ডের টেস্ট দলকে হারিয়েই দিচ্ছিল বাংলাদেশ। হ্যাটস অফ টু দি বয়েজ!

প্রশ্ন : কোথায় হারল বাংলাদেশ ম্যাচটা?

মাশরাফি : আমি বলব দুর্ভাগ্য। এই উইকেটে ব্যাটিং কঠিন। মুশফিকের ওই বলটা যদি আধাঘণ্টা পরেও আসত, তাহলেই জিতত বাংলাদেশ। কারণ মুশফিক আরেকটু সময় পেলে ম্যাচটা পুরোপুরি গ্রিপে চলে আসত। কিন্তু ওই যে দুর্ভাগ্য, লাফিয়ে ওঠা বলটা তখনই পেল মুশফিক!

প্রশ্ন : কিন্তু শেষদিনে কি টেল এন্ডারদের আরেকটু আগলে রাখতে পারতেন না সাব্বির রহমান?

মাশরাফি : এই চিন্তাটাই ভুল। এসব পরিস্থিতিতে টেল এন্ডাররা যেন ব্যাটিং ক্রিজে থাকে, সে চেষ্টাই করে প্রতিপক্ষ। দেখা যায়, ব্যাটসম্যানের বেলায় এমনভাবে ফিল্ড সেট করে কিংবা বোলিং করে যেন এন্ড বদলাতে না পারে। তাই সবচেয়ে ভালো সঙ্গীর ওপর ভরসা রাখা, তাতে প্রতিপক্ষ ঠিকঠাক প্ল্যান করতে পারে না।

প্রশ্ন : এই ম্যাচে বাংলাদেশের কোন জিনিসটা সবচেয়ে ভালো লেগেছে?

মাশরাফি : কারো অবদানই খাটো করে দেখার উপায় নেই। সবারই কমবেশি অবদান আছে। তবে একটা বিষয়কে আলাদা করতে বললে আমি বলব সাব্বিরের ব্যাটিং। চাপের মধ্যেও নিজের অভিষেকে কি দুর্দান্ত ব্যাটিং করল ও। এমন ব্যাটিং দলের ভেতরেও আত্মবিশ্বাস ছড়িয়ে দেয়।

প্রশ্ন : এরপর তো ঢাকা টেস্ট। চট্টগ্রাম নিয়ে কারো কোনো আশা ছিল না। কিন্তু প্রথম টেস্টের পর ঢাকার ম্যাচকে ঘিরে প্রত্যাশার প্রবল চাপ তৈরি হবে। সেটা কি নিতে পারবে বাংলাদেশ দল?

মাশরাফি : প্রত্যাশার চাপ নিয়ে আমি অত ভাবি না। চট্টগ্রাম টেস্টের এমন পরিণতির কথা তো আমরা কেউই ভাবিনি। আমি আশাবাদী যারা অভাবনীয় এ কাণ্ডটা করেছে, তারা চাপও সামলাতে জানে। বরং অন্যভাবে বলি যে, চট্টগ্রাম টেস্ট থেকে একরাশ অনুপ্রেরণা নিয়েই ঢাকায় নামবে মুশফিকরা।

প্রশ্ন : টানা কঠিন ক্রিকেট খেলার ক্লান্তিও তো আছে…

মাশরাফি : আমার চিন্তা শুধু এটা নিয়েই। আশা করি ছেলেরা দ্রুত রিকভার করবে।-

এ সম্পর্কিত আরও

Best free WordPress theme

কম খরচে আপনার বিজ্ঞাপণ দিন। প্রতিদিন ১ লাখ ভিজিটর। মাত্র ২০০০* টাকা থেকে শুরু। কল 016873284356

Check Also

কেদার যাদবের সাফল্যের পিছনে রয়েছে এই একটা কারণ। পড়ুন তা

একটা শতরানই এখন বদলে দিয়েছে কেদার যাদবকে। প্রচারের সার্চলাইট তাঁর উপরে। প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে ৬৫ …