সাভারে কলেজ শিক্ষিকাকে হত্যা, স্বামী আটক

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২৫, ২০১৬ at ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ

সাভারে কলেজ শিক্ষিকা আছমা আফরিন মিতুকে (২৮) পিটিয়ে হত্যা করেছেন তার স্বামী মুরাদ মিয়া। সোমবার রাতে সাভার পৌর এলাকার আনন্দপুর সিটি লেন এলাকায় আছমার বাবার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা যায়।full_1535647653_1477367881

নিহত আছমা ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজের বাংলা বিভাগে শিক্ষিকা। আছমার স্বামী ঢাকা জুডিসিয়াল সার্ভিস কমিশিনের শাখা সহকারী হিসেবে কর্মরত। এ ঘটনায় স্বামী মুরাদ মিয়াকে আটক করেছে সাভার মডেল থানা পুলিশ।

শিক্ষিকার পরিবারিক সূত্রে জানা যায়, এক বছর আগে প্রেমের সম্পর্কে জরালে সাভারের আনন্দপুর এলাকার ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেনের মেয়ে আছমা আফরিন মিতুর সঙ্গে চাঁদপুর এলাকার মুরাদ মিয়ার বিয়ে হয়। তারা দু’জনই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন।

বিয়ের পর তারা ঢাকায় একটি বাসায় থাকতেন। পরে আছমা ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজে বাংলা বিভাগে শিক্ষকতা শুরু করেন। কয়েক দিন আগে তারা দু’জনেই আছমার বাবার বাড়ি আনন্দপুরে বেড়াতে আসেন।

পারিবারিক কলহের জের ধরে সোমবার রাত পৌনে ৮টার দিকে তার মেয়ে মিতুকে পিটিয়ে হত্যা করে মুরাদ। এরপর তার লাশ ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় এলাকাবাসী মুরাদকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করে।

এদিকে, পরিবারের সদস্যরা মিতুকে উদ্ধার করে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ রাত ৯টায় শিক্ষিকার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী মিতুর দেহে কয়েকটি গুরুতর আঘাতের চিহ্ন আছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিলে হত্যা মামলা দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ সম্পর্কিত আরও