ঢাকা : ২৩ আগস্ট, ২০১৭, বুধবার, ৬:২৩ পূর্বাহ্ণ
সর্বশেষ
বন্যার্তদের জন্য ঢাবির ডীনস অ্যাওয়ার্ড উৎসর্গ করলেন সুফিয়ান বন্যায় বাংলাদেশ, ভারত ও নেপালে মৃতের সংখ্যা কমপক্ষে ৮০০ ভুটানকে হারিয়ে গ্রুপসেরা বাংলাদেশ সাংবাদিক শিমুল হত্যা: ৭ আসামির আত্মসমর্পণ প্রধান আসামী নূর হোসেন ও তারেক সাঈদসহ ১৫ আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল পরিস্থিতি বিবেচনায় নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত: সিইসি পেট্রোল বোমায় হতাহতদের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নায়করাজকে শ্রদ্ধা জানাতে শহীদ মিনারে মানুষের ঢল যে মানুষটার কারণে সেদিন প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আলোচিত ৭ খুন মামলার রায়ের অপেক্ষায় স্বজন ও নারায়ণগঞ্জবাসী
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

উইকেট নিয়ে ভাবছেন না টাইগার তামিম

6d0b20aaa1870532ff283af846043545x480x320x19

স্পোর্টস ডেস্ক: আগামী শুক্রবার মিরপুরে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। এই ম্যাচে টস জেতাটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। টস ছাড়াও বাংলাদেশের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে ডিআরএস ও ঢাকার উইকেট।

চট্টগ্রামে স্পিন সহায়ক উইকেট থাকায় রীতিমতো বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের পরীক্ষায় বসতে হয়েছে। আর আগের সব রেকর্ড ভেঙে চট্টগ্রামে ২৬টি রিভিউয়ের ঘটনা ঘটেছে। ১১বার ফিল্ড আম্পায়ারদের তাদের সিদ্ধান্ত বদল করতে হয়েছে। চট্টগ্রামে ঘটে যাওয়া ঘটনার পর ঢাকাতে চলে এসেছে এই সব আলোচনা।

সহ-অধিনায়ক তামিম অবশ্য সরাসরিই বলে দিলেন উইকেটপ-টস-ডিআরএস নিয়ে তার দলের খেলোয়াড়রা একদমই ভাবছেন না, ‘উইকেট বলেন, টস বলেন, ডিআরএস বলেন, এগুলো সব পরের বিষয়। আমাদের সবার আগে ভালো খেলতে হবে। ভালো খেললেই জেতার সম্ভবনা আসবে। আমাদের ফোকাস কিভাবে নিজেদের খেলার উন্নতি করা যায়, সেদিকেই।’

শেষ ম্যাচটা ২২ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। চট্টগ্রামেই ম্যাচটি ভুলে এসেছেন বলে জানালেন তামিম, ‘শেষ ম্যাচ নিয়ে এত আলোচনা না করাই ভালো। অনেক ভালো একটা টেস্ট ম্যাচ হয়েছে। দিন শেষে আমরা ম্যাচটা হেরেছি। রেকর্ডে কখনোই লেখা থাকবে না বাংলাদেশ ভালো খেলেছে। এখন ওই ম্যাচ নিয়ে চিন্তা করে লাভ নেই, আমাদের কাজ হচ্ছে পরের যে ম্যাচ আছে সেখানে ফোকাস করা। উইকেটের কথা ভুলে যাওয়া। আগের ভুলগুলো ঠিক করা।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘টস, এটা্ও আমাদের হাতে নেই। টসে জিতলে আমরা হয়তো বা আগেই ব্যাটিং কিংবা ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিতে পারতাম। কিন্তু এখানে ভাগ্যে যেটা হবে সেটাই করতে হবে।’

ঢাকা টেস্ট এই সব বাদ দিয়ে সুন্দর পরিকল্পনা ও সেই সব পরিকল্পনা বাস্তবায়নের দিকে মনোযোগী হতে যান তামিম, ‘আমাদের যে পরিকল্পনা আছে, সেগুলো মাঠে ভালোভাবে বাস্তবায়ন করতে পারি। তাহলে আমার কাছে মনে হয় ফল আসবে। ওখানেই আমাদের ফোকাস দেওয়া উচিত। দলের খেলোয়াড়রা এটা নিয়েই ভাবছে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘প্রতিপক্ষেকে কিভাবে সামলানো যায় সেগুলো নিয়ে আমাদের মধ্যে আলোচনা হয়। আমরা এই সব নিয়েই ভাবি। উইকেট কেমন হবে কিংবা টস কে জিতবে, এগুলো নিয়ে ভাবি না।’

 

চট্টগ্রামে টার্নিং উইকেট হওয়াতে ব্যাটসম্যানরা বড় রান পাননি। ঢাকাতে একই ধরনের উইকেট হলে পরিকল্পনা কেমন থাকবে, জানতে চাইলে তামিম বলেছেন, ‘ওখানে ব্যাটিং করা কঠিন ছিল। ৩০ রানের ইনিংস ৬০-৭০ রানের সমান। ওখানে আমরা যদি আরও ২০-৩০ রান বেশি করতে পারতাম, তাহলে আমাদের জন্য টেস্ট ম্যাচটা আরও সহজ হতো। মিরপুরেও যদি এমন হয়, তাহলে আমাদের সবার চেষ্টা করতে হবে কিভাবে ভালো করা যায়। আর যদি কন্ডিশন ব্যাটিং সহায়ক হয়, তাহলে যে সেট হবে, সে বড় ইনিংস খেলার চেষ্টা করবে।’

এ সম্পর্কিত আরও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *