Mountain View

পুষ্টিহীনতায় প্রতিবছর ৮ হাজার কোটি টাকার উৎপাদন হারাচ্ছে বাংলাদেশ

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২৬, ২০১৬ at ১০:২৩ অপরাহ্ণ

খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করলেও পুষ্টিহীনতার কারণে প্রতিবছর বাংলাদেশ প্রায় আট হাজার কোটি টাকার উৎপাদন হারাচ্ছে। বিশ্ব খাদ্য সংস্থার (ডব্লিউএফপি) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে আসে।
বুধবার শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কেন্দ্রে ‘বাংলাদেশে খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টি বিষয়ে কৌশলগত পর্যালোচনা’ শীর্ষক প্রতিবেদনটির মোড়ক উন্মোচন হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, নর্দান আয়ারল্যান্ডের আলস্টার ইউনিভার্সিটি অধ্যাপক সিদ্দিকুর রহমান ওসমানী এবং বিশ্ব খাদ্য সংস্থার চিফ অব স্টাফ জেমস হার্বে।
ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়, গত কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশ বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ন করলেও এখনও কিছু জায়গায় সমস্যা রয়ে গেছে। যেখানে বিপুল সংখ্যক জনসংখ্যা এখনও খাদ্য নিরাপত্তা ও ক্ষুধামুক্ত হতে পারেনি।
এই পুষ্টিহীনতার অন্যতম বড় কারণ হিসেবে বাল্য বিবাহকে দায়ী করা হয় প্রতিবেদনে। বলা হয়, বাল্যবিবাহের ফলে তাদের ঘরে যে সন্তান জন্ম নেয় সে অপুষ্টিতে ভোগে। এছাড়া বাবা-মা সাধারণত পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করতে পারে না। ফলে এর প্রভাব পড়ে তাদের সন্তানের ওপর।
আরো বলা হয়, বাংলাদেশের এক চতুর্থাংশ লোক ২০১৪ সালেও খাদ্য নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ছিল। যার সংখ্যা প্রায় চার কোটি। এর মধ্যে প্রচণ্ডভাবে খাদ্যাভাবে ছিল এক কোটি ১০ লাখ মানুষ।
অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, পুষ্টির ঘাটতি পূরণে সরকারের পক্ষ থেকে সহায়তা দেয়া হচ্ছে। এখনও আমরা পুষ্টির যোগান দিতে নানাভাবে সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি। বাচ্চাদের জন্য এক হাজার দিন পর পর্যন্ত পুষ্টি সহায়তা দেয়া হচ্ছে।
এদিকে পুষ্টির বৈষম্য বাড়ার পেছনে বণ্টন ব্যবস্থার দুর্বলতাকে দায়ী করেন নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের আলস্টার ইউনিভার্সিটি অধ্যাপক সিদ্দিকুর রহমান ওসমানী।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View