ঢাকা : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, সোমবার, ৬:৪০ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

কোন ধর্মে কী খাওয়া নিষেধ?

20161026121756
এক্সক্লুসিভ ডেস্ক: বিশ্ব জুড়ে সব ধর্মের মানুষের খাবারের উপর নানা বিধি নিষেধ আছে, কোনোটা খাওয়া সম্ভব আর কোনোটা খাওয়া বারণ, বিশেষ করে আমিষ, অর্থাৎ মাছ-মাংসের ক্ষেত্রে৷ বহু শতাব্দী ধরে এই সব বিধি নিষেধ চলে আসছে৷

হিন্দুধর্মে গরু, হিন্দু ধর্মে গরুকে পবিত্র বলে মনে করা হয়, তাই গো-মাংস ভক্ষণ নিষিদ্ধ৷ ভেড়ার মাংস, মুরগির মাংস বা মাছ ছাড়া বস্তুত বাকি সব ধরণের মাংসই নিষিদ্ধ৷ হিন্দুদের একটি বড় অংশ নিরামিষ ভোজন করে থাকেন৷

ইহুদিরা যা খান ও যা খান না ইহুদিদের জন্য যা খাওয়া অনুমোদিত, তাকে বলা হয় কোশার ও যা খাওয়া নিষিদ্ধ, তাকে বলা হয় ত্রেফা৷ কোশার হলো সেইসব প্রাণী, যাদের পায়ের খুর পুরোপুরি চেরা এবং যারা জাবর কাটে, যেমন গরু, ছাগল কিংবা ভেড়া৷ ঘোড়া কিংবা শূকর এই কারণে কোশার নয়৷ কোশার মাছের আবার আঁশ ও পাখনা থাকা চাই৷

বৌদ্ধধর্মে খাওয়া নিয়ে বিধিনিষেধ, বৌদ্ধধর্মে সব ধরণের মাংস, এমনকি মাছ ভক্ষণও নিষিদ্ধ, কেননা বৌদ্ধরা বিশ্বাস করেন যে, কোনো প্রাণি সত্তার মৃত্যুর জন্য তাদের দায়ী হওয়া উচিৎ নয়৷

শিখদের ‘নিষিদ্ধ’ খাবার…শিখরা শূকরের মাংস খান না৷ সেই সঙ্গে হালাল বা কোশার মাংসও তাদের কাছে অভক্ষ্য, কেননা অন্য কোনো ধর্মের ধর্মাচারে অংশগ্রহণ করা তাদের জন্য নিষিদ্ধ৷

জৈন ধর্মাবলম্বীরা মূলত নিরামিষ ভোজী জৈনধর্মের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নীতি হলো অহিংসা, যে কারণে অধিকাংশ জৈন নিরামিষ আহার করেন৷ তবে তারা দুধ ও দুগ্ধজাত পণ্যও গ্রহণ করে থাকেন৷—dw

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

20161114142700

৬৮ বছর পর আবারও আকাশে ‘সুপার মুন’, দেখা মিলবে আজ বিকেলে

এক্সক্লুসিভ ডেস্ক : এই শতাব্দীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ ‘সুপার মুন’ দেখতে পাওয়া যাবে আজ রাতে। ‘সুপার …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *