Mountain View

বাংলাদেশের ইতিহাসে বিসিএসে দুইবার প্রথম হওয়া একমাত্র ব্যাক্তি যিনি

প্রকাশিতঃ অক্টোবর ২৯, ২০১৬ at ৯:২৯ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশে মেধার সর্বোচ্চ প্রতিফলনের জায়গা বলা হয় বিসিএসকে। যেখানে অংশ নেন দেশের সেরা সব মেধাবীরা। স্বাভাবিক কারণেই বিসিএসে উত্তীর্ন যে কাউকেই গণ্য করা হয় তুখোর মেধাবী হিসেবে। সেখানে কেউ প্রথম হলে তো কথাই নেই। আর যদি কেউ দুবার প্রথম হন? বাংলাদেশের ইতিহাসে এমনটা ঘটেছিলো একবারই। অথচ সেই লোকটাই কিনা একেবারে সাদামাটা আর বিনয়ী। অহংবোধ যাকে একদমই স্পর্শ করতে পারেনি। বলছিলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নাজিম উদ্দিনের কথা।

চলুন ফিরে যাই তার বিসিএস অভিজ্ঞতায় । বোর্ড কর্মকর্তারা জিজ্ঞেস করলেন, “জনাব, নাজিম উদ্দিন, আপনি কেন আগেরবার প্রথম হয়েও যোগদান সিভিল সার্ভিসে যোগদান করলেন না?” ছেলেটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সদ্য পাশ করেছে। পাশ করেই বিসিএস পরীক্ষা দিল এবং প্রচণ্ড পরিশ্রমের ফল হিসেবে প্রথম হল (১০ম বিসিএস পরীক্ষা)। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে সেই ছেলে চাকরিতে যোগদান করলো না!

 screenপরবর্তীতে ১২তম বিসিএস পরীক্ষা চলে এলো এবং সেই ছেলে আবার ও ভাইভাতে হাজির! ভাইভা বোর্ডের উপস্থিত সবাই অবাক হয়ে দেখল এই ছেলে ১০ম বিসিএস পরীক্ষায় প্রথম মেধাস্থানে ছিল! বোর্ড কর্মকর্তারা জিজ্ঞেস করলেন, “জনাব, নাজিম উদ্দিন, আপনি কেন আগেরবার প্রথম হয়েও  সিভিল সার্ভিসে যোগদান করলেন না?”

উত্তরে নাজিম উদ্দিন জানালেন, আগেরবার বিসিএস পরীক্ষায় প্রথম হওয়ার পরেই তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে লেকচারার হিসেবে যোগদান করেন, তাই আর সিভিল সার্ভিসে যোগদান করেন নি।

তারপর, বোর্ড কর্মকর্তারা জিজ্ঞেস করলেন, “এবার কেন আপনি আবার বিসিএস পরীক্ষা দিয়েছেন?” উত্তরে নাজিম উদ্দিন যা জানালেন তাতে বোর্ড কর্তাদের চক্ষু চড়কগাছ! নাজিম উদ্দিনের সরল উত্তর, “আসলে আমি একটু যাচাই করে দেখলাম, আমার সেই মেধা আর প্রস্তুতি ঠিক আছে কিনা”!!!

এতক্ষণ যা পড়লেন তার কিছুই গল্প নয়, বাস্তব সত্যি। আর সেই নাজিম উদ্দিন হলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সি‌স্টেমস্ বিভাগের প্রফেসর নাজিম উদ্দিন ভূঁইয়া, এফসিএমএ। আর হ্যাঁ, তিনি দ্বিতীয় বারেও বিসিএস পরীক্ষায় প্রথম হন।

কিন্তু যোগদান করেননি, পেশা হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতাকেই বেছে নেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে একজন মানুষই বিসিএসে দুইবার প্রথম হয়েছেন, কিন্তু তিনি নিজেকে সেলিব্রিটি ঘোষণা করেননি, যাকে-তাকে তাচ্ছিল্য করেননি। কারণ, তিনি জানতেন, “যিনি যত বেশি জ্ঞানী, তিনি তত বেশি বিনয়ী।

এ সম্পর্কিত আরও

no posts found