ঢাকা : ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, রবিবার, ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

মিরাজের কল্যাণে ষষ্ঠ উইকেটের দেখা পেলো বাংলাদেশ

254145

বিপদজনক হয়ে ওঠা রুট-বেয়ারস্টো জুটি ভাঙলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। দু’জনের পার্টনারশিপে আসে ৪৫। ৩৩তম ওভারে জনি বেয়ারস্টোকে (২৪) এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলেন নিজের চার নম্বর উইকেট আদায় করেন এ উঠতি অফস্পিন অলরাউন্ডার।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ২২০ রানের জবাবে ষষ্ঠ উইকেট হারালো ইংল্যান্ড।

এ রিপোর্ট লেখা ‍অবধি ৩৩.৩ ওভার শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ পাঁচ উইকেটে ১১৬/৬.

তিন উইকেটে পঞ্চাশ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের ব্যাটিংয়ে নেমে আরো দুই উইকেট হারায় ইংলিশরা। দলীয় ৬৪ রানে মঈন আলী পাঁচ রান যোগ হতেই সাজঘরে ফেরেন বেন স্টোকস।

১৬তম ওভারে স্টোকসকে (০) মুমিনুল হকের ক্যাচে পরিণত করে উইকেটের খাতায় নাম লেখান তাইজুল ইসলাম। দলীয় ৬৯ রানে পঞ্চম উইকেটের পতন ঘটে। আগের ওভারেই মঈনকে (১০) ক্লিন বোল্ড করে ব্রেকথ্রু এনে দেন আগের দিনের দুই উইকেটশিকারি মেহেদি হাসান মিরাজ।

বৃষ্টির কারণে গতকাল (২৮ অক্টোবর) পুরোদিন খেলা সম্ভব হয়নি। ১২.৩ ওভার শেষে মাঠ ছাড়েন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান জো রুট ও মঈন আলী।

শুক্রবার স্বাগতিকদের ২২০ রানের জবাবে শুরুতেই বেন ডাকেটের (৭) উইকেট হারায় ইংলিশরা। ইনিংসের দ্বিতীয় ও নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট উদযাপনে মাতেন সাকিব অাল হাসন। পঞ্চম ওভারে ইংলিশ দলপতি অ্যালিস্টার কুককে এলবিডব্লুর ফাঁদে পেলেন চট্টগ্রাম টেস্টে অভিষিক্ত মেহেদী হাসান মিরাজ।

পরে গ্যারি ব্যালান্সকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন ১৯ বছর বয়সী এ উঠতি অফস্পিন অলরাউন্ডার। ডাকেটের পর ব্যালান্সকেও গ্লাভসবন্দি করেন মুশফিকুর রহিম। দলীয় ৪২ রানের মাথায় তিন উইকেট হারায় তারা।

এর আগে মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথম দিনের প্রথম সেশনে একক আধিপত্য দেখায় টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ। কিন্তু এরপর ক্রমেই যেন উইকেটের আচরণ বদলায়! দলীয় ১ রানে ইমরুল কায়েসকে (১) হারালেও মুমিনুল হককে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ১৭০ রানের পার্টনারশিপ গড়ে শক্ত ভিত গড়ে দেন সেঞ্চুরিয়ান তামিম ইকবাল।

তামিমের দুর্দান্ত ইনিংস সত্ত্বেও বাংলাদেশ গুটিয়ে যায় ২২০ রানে। শুরুটা বাঘের মতো হলেও মিডঅর্ডারের ব্যর্থতায় বড় সংগ্রহ গড়া হয়নি। চট্টগ্রাম টেস্টের উইকেট যেন ফিরে আসে মিরপুরে। বল মন্থর হয়ে ব্যাটে আসার সঙ্গে টার্নও বাড়তে থাকে। এর পুরো সুবিধাই কাজে লাগায় বোলাররা। একদিনে দু’দলের ১৩ উইকেটের পতন তো তারই প্রমাণ।

শেষ ৪৯ রানে ৯ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। শেষ ৩০ রানে আট উইকেট। ভাবা যায়! রীতিমতো ধসই নামের টাইগারদের ব্যাটিং লাইনআপে। ব্যাটিংয়ে হতাশার দিনে উজ্জ্বল ছিলেন তামিম ও মুমিনুল। অন্যদিকে, ইংলিশদের হয়ে একাই পাঁচ উইকেট দখল করেন অফস্পিন অলরাউন্ডার মঈন আলী।

ক্যারিয়ারের অষ্টম টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নেন তামিম (১০৪)। ৪২তম ওভারে মঈনের বলে এলবিডব্লুর শিকার হন দেশসেরা এ ওপেনার। মঈনের বলেই বোল্ড হয়ে ৬৬ রান করে আউট হন মুমিনুল। আর কেউই উইকেটে থিতু হতে পারেননি।

বাজের শট খেলে একে একে সাজঘরে ফেরেন সাকিব-মাহমুদউল্লাহরা। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১৩, সাকিব অাল হাসান ১০, অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ৪, সাব্বির রহমান ০, শুভাগত গোম ৬, কামরুল ইসলাম রাব্বি ০ ও মেহেদি হাসান মিরাজের ব্যাট থেকে আসে মাত্র ১। ৫ রানে অপরাজিত থাকেন তাইজুল ইসলাম।

মঈনের সঙ্গে বল হাতে দুর্দান্ত ছিলেন ইমরুলকে ফিরিয়ে উইকেটের সূচনা করা ক্রিস উকস ও বেন স্টোকস। উকস তিনটি ও বাকি দুই উইকেট নেন স্টোকস।

সিরিজ বাঁচাতে এ ম্যাচে মুশফিকদের জয়ের বিকল্প নেই। দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে সফরকারীরা। চট্টগ্রামে জয়ের কাছাকাছি গিয়েও শেষদিকের ছন্দপতনে ২২ রানের পরাজয় সঙ্গী হয়। মিরপুরে কী সেই আক্ষেপ মেটাতে পারবে টিম বাংলাদেশ?

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

b78f99f5defe0cd0e3cc536e71f0fbbax600x400x35

বলুন তো মেসি শেষ কবে রিয়ালের জালে বল পাঠান এবং সেবার মাঠে কী হয়েছিল?

স্পোর্টস ডেস্ক: শিরোনাম দেখে কি চমকে গেলেন! তা যাওয়ারই কথা। কোনো গোলমেশিনের ব্যাপারে এমন কথা …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *