সাগরে নিম্নচাপের ফলে উধাও হয়ে গিয়েছে শীতের হিমেল হাওয়া

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ৪, ২০১৬ at ১২:০২ পূর্বাহ্ণ

ghurnijor

ঘূর্ণিঝড় কায়ান্টের নয় দিন পর ফের বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের রক্তচক্ষু। ২৫ অক্টোবর সৃষ্টি হওয়া ‘কায়ান্ট’ দু’দিন রক্তচক্ষু দেখালেও পরে দুর্বল হয়ে সরে যায়। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার সৃষ্টি হওয়া এ নিম্নচাপটি একটি সাইক্লোনে রূপ নিতে পারে।

এ নিম্নচাপের ফলে উধাও হয়ে গিয়েছে কার্তিকের হিমেল হাওয়া। তাই শীতভাগ্য আসাটা অনেকটা ঝুলে রইল। অথচ আসছে শীতের আনন্দের প্রহর গুণছিল সবাই। তবে ঢাকাসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলে বৃষ্টি হচ্ছে। আগামী পাঁচদিন এ বৃষ্টি শঙ্কা থাকতে পারে।

নিম্নচাপের জেরে থমকে রয়েছে উত্তরের হওয়া। আর সে কারণেই হেমন্তের পরিষ্কার আকাশে গত কয়েকদিন ধরে রয়েছে মেঘের আচ্ছাদন। নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে শীতল হাওয়ার বদলে ভাদ্রের গরম।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, দেশের দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপটি পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম দিকে সরে গিয়ে দক্ষিণ-পূর্ববঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি অবস্থান করছে। আগামী ৩৬ ঘণ্টায় তা শক্তি বাড়িয়ে সাইক্লোনে রূপ নিতে পারে।

এর প্রভাবে দেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দরের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর উত্তাল রয়েছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

সাগরে মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে গভীর সাগরে যেতে বারণ করা হয়েছে।

আগামীকাল শুক্রবার সকালে ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়া বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

এ সম্পর্কিত আরও