জাতীয় অধ্যাপক ডা. এম আর খান আর নেই

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ৫, ২০১৬ at ৮:৫৯ অপরাহ্ণ

এ বছরই স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন ডা. এমআর খান। গত ২৪ মার্চ প্রধানমন্ত্রী তাকে পদক পরিয়ে দিয়েছিলেন।
full_1140934111_1478356404
বাংলাদেশে শিশু চিকিৎসার পথিকৃৎ চিকিৎসক জাতীয় অধ্যাপক ডা. এমআর খান আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শনিবার বিকাল ৪টা ২৫ মিনিটে সেন্ট্রাল হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। খ্যাতনামা এই শিশু বিশেষজ্ঞের বয়স হয়েছিল ৮৮ বছর।

বার্ধক্যজনিত অসুস্থতা নিয়ে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। সম্প্রতি দেশে ও দেশের বাইরে তার দু’তিনটি অস্ত্রোপচার হয়েছিল। প্রয়াত এই চিকিৎসকের মরদেহ সেন্ট্রাল হাসপাতালের মরচুয়ারিতে রাখা হবে।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় শিশু বিশেষজ্ঞ ও মিরপুর ইনস্টিটিউট অব চাইল্ড হেলথের পরিচালক ড. এখলাসুর রহমান বলেন, এমআর খান ছিলেন বাংলাদেশে শিশু বিভাগের প্রথম অধ্যাপক। এমন কোনো শিশু বিশেষজ্ঞ নেই যিনি প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে স্যারের ছাত্র ছিলেন না।

তাকে বলা হয়, ফাদার অব পেডিয়াট্রিশিয়ান অ্যান্ড ইনস্টিটিউশন। তিনি চিকিৎসায় অবদানের জন্য একুশে পদক ও স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হয়েছেন। এ বছরই ২৪ মার্চ এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে স্বাধীনতা পদক পরিয়ে দেন।

অধ্যাপক এমআর খান তার কর্মবহুল জীবনে চিকিৎসাসহ জাতীয়ভিত্তিক বহু প্রতিষ্ঠান, সংস্থা ও সংগঠন প্রতিষ্ঠা ও এগুলোর সঙ্গে জড়িত ছিলেন। এর মধ্যে শিশু স্বাস্থ্য ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, মিরপুরের ইনস্টিটিউট অব চাইল্ড হেলথ অ্যান্ড হসপিটাল, সাতক্ষীরা শিশু হাসপাতাল, শিশু হাসপাতাল যশোর ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় উল্লেখযোগ্য।

এ সম্পর্কিত আরও