ঢাকা : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, মঙ্গলবার, ৮:৫৭ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

পরিসংখ্যানে বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেট,দেখে নিন সব রেকর্ড

84254dc1b37c4d3ab7b13d6263ea2c5e-58242c2d5456f

সাদা পোশাকে একটু একটু করে বাংলাদেশ পেরিয়ে গেছে ১৬ বছর। প্রাপ্তি বলতে ৮টি টেস্ট ম্যাচ জয়। ব্যক্তিগত সাফল্যও কম নয়; সবচেয়ে কম বয়সে সেঞ্চুরি মোহাম্মদ আশরাফুলের দখলে। অভিষেকে একই টেস্টে সেঞ্চুরি এবং হ্যাটট্রিক করেছেন সোহাগ গাজী। এনামুল হক জুনিয়র সবচেয়ে কম বয়সী টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে এক ম্যাচে নিয়েছেন ১০ উইকেট। অভিষেক টেস্টে ১০ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে সেঞ্চুরির কৃতিত্ব রয়েছে আবুল হাসান রাজুর। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০১৪ সালে টেস্টে সিরিজে এক ম্যাচে সেঞ্চুরি ও ১০ উইকেট নিয়ে সাকিব আল হাসান বোথাম-ইমরানদের কাতারে পৌঁছেছেন।

একইভাবে ১৬ বছরে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের মালিক তামিম ইকবাল ৩ হাজার৩৪৯। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ স্কোরের মালিক তামিম ইকবাল, ২০৬ রান। টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি উইকেটের মালিক সাকিব। টেস্ট ক্রিকেটে সেরা বোলিং তাইজুল ইসলামের। সবচেয়ে বড় জুটি তামিম-ইমরুলের। ১৬ বছরে সবচেয়ে বেশি টেস্ট খেলা ক্রিকেটার আশরাফুল (৬১)।

এছাড়া সর্বশেষ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১২৯ বছরের রেকর্ড ভেঙে সেটি নিজের করে নিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে মিরাজ ১৯ উইকেট নিয়ে সবার উপরে অবস্থান করছেন।

বাংলাদেশ কমবেশি সব টেস্ট খেলুড়ে দেশের সঙ্গে মোট ৯৫টি টেস্ট খেলেছে। যার মধ্যে ৭২টি ম্যাচেই হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে। ১৫টি ড্র আর জয় ৮ ম্যাচে। বাংলাদেশ জয় পাওয়া আটটি টেস্টের পাঁচটি জিতেছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। দুটি জয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং একটি ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

এই পর্যন্ত বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি ১৬টি টেস্ট খেলেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। যদিও লঙ্কানদের বিপক্ষে ১৪ হারের বিপরীতে ২টি ড্রই কেবল সঙ্গী টাইগারদের। এরপরই সর্বোচ্চ ১৪ টেস্ট বাংলাদেশ খেলেছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। যেখানে ৬ হারের বিপরীতে সবচেয়ে বেশি ৫ জয় ও ৩ ড্র আছে বাংলাদেশের। এ ছাড়া তৃতীয় সর্বোচ্চ ১২ টেস্ট খেলা ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২ জয়, ৮ হার ও ২ ড্র আছে মুশফিক বাহিনীর। আর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১১টি, ইংল্যান্ড, পাকিস্তান ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১০টি করে, ভারতের বিপক্ষে ৮টি ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ।

১৬ বছরে বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি সাফল্য পেয়েছে ২০১৫ সালে। ভারত-পকিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে ৫টি টেস্ট খেলে মাত্র একটি ম্যাচ হেরেছে। এর আগের বছর ৭টি ম্যাচ খেলে তিনটি হার, তিনটি জয় এবং একটি ড্র করতে সক্ষম হয়েছে।

বছর অনুযায়ী বাংলাদেশের টেস্ট পরিসংখ্যান

সাল| ম্যাচ| জয়| হার| ড্র|

২০০০| ১ | – | ১ | – |

২০০১| ৮ | – | ৭ | ১ |

২০০২| ৮ | – | ৮ | – |

২০০৩| ৯ | – | ৯ | – |

২০০৪| ৮ | – | ৬ | ২ |

২০০৫| ৬ | ১ | ৪ | ১ |

২০০৬| ৪ | – | ৪ | – |

২০০৭| ৫ | – | ৪ | ১ |

২০০৮| ৯ | – | ৮ | ১ |

২০০৯| ৩ | ২ | ১ | – |

২০১০| ৭ | – | ৭ | – |

২০১১| ৫ | – | ৪ | ১ |

২০১২| ২ | – | ২ | – |

২০১৩| ৬ | ১ | ২ | ৩ |

২০১৪| ৭ | ৩ | ৩ | ১ |

২০১৫| ৫ | – | ১ | ৪ |

২০১৬| ২ | ১ | ১ | – |

প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ম্যাচগুলো

প্রতিপক্ষ| ম্যাচ| জয় | হার| ড্র|

অস্ট্রেলিয়া| ৪ | ০ | ৪ | ০|

ইংল্যান্ড | ১০| ১ | ৯ | ০|

ভারত | ৮| ০ | ৬ | ২|

নিউজিল্যান্ড| ১১| ০ | ৮ | ৩|

পাকিস্তান| ১০| ০ | ৯ | ১|

দক্ষিণ আফ্রিকা|১০| ০ | ৮ | ২|

শ্রীলঙ্কা| ১৬ | ০ | ১৪| ২|

ওয়েস্ট ইন্ডিজ| ১২| ২| ৮ | ২|

জিম্বাবুয়ে| ১৪| ৫| ৬ | ৩|

টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশ

* প্রথম জয়-জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২২৬ রানে, ২০০৫ সালে, চট্টগ্রামে।

* সর্বোচ্চ ইনিংস-৬৩৮ রান, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে, ২০১৩ সালে।

* সর্বনিন্ম ইনিংস-৬২ রান, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে, ২০০৭ সালে।

* সর্বোচ্চ জয় রানে-২২৬ রানে জয়, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে, ২০০৫ সালে।

* সর্বোচ্চ জয় উইকেটে-৪ উইকেটে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে, ২০০৯ সালে।

* সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান-তামিম ইকবাল, ৪০.৩৪ গড়ে ৩হাজার ৩৪৯ রান।

* সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস-তামিম ইকবাল, ২০৬ রান, পাকিস্তানের বিপক্ষে।

* সবচেয়ে বেশি শতক-তামিম ইকবাল, ৮টি।

* সবচেয়ে বেশি অর্ধশতক-হাবিবুল বাশার, ২৪টি।

* সবচেয়ে বেশি শূন্য-মোহাম্মদ আশরাফুল, ১৬টি।

* এক সিরিজে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রান-হাবিবুল বাশার, ৬৩.১৬ গড়ে ৩৭৯ রান।

* সবচেয়ে বেশি উইকেট-সাকিব আল হাসান, ১৫৯টি।

* এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি উইকেট-তাইজুল ইসলাম, ৮টি।

* এক টেস্টে সবচেয়ে বেশি উইকেট-যৌথভাবে-মেহেদী হাসান মিরাজ ও এনামুল হক জুনিয়র, ১২ টি।

* সর্বোচ্চ ৫ উইকেট শিকার-সাকিব আল হাসান, ১৫টি।

* ম্যাচে ১০ উইকেট শিকার-একবার করে মিরাজ, এনামুল জুনিয়র ও সাকিব।

* সিরিজে সর্বোচ্চ উইকেট শিকার-মিরাজ, ১৯টি।

* সবচেয়ে বেশি ডিসমিসাল-মুশফিকুর রহিম, ৯২ টি।

* ফিল্ডার হিসেবে সর্বোচ্চ ক্যাচ-মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, ২৯টি।

* সর্বোচ্চ জুটি-তামিম-ইমরুল, ৩১২ রান, প্রথম উইকেটে।

* সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলা-মোহাম্মদ আশরাফুল, ৬১ টি।

* সবচেয়ে বেশি ম্যাচে অধিনায়ক-মুশফিকুর রহিম, ২৬ ম্যাচ।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

20161205_123413

রান নিয়ে বিরোধে শেরপুর কলেজের শিক্ষকসহ আহত ১৯

ঢাকা বোর্ড কর্তৃক আন্তঃ কলেজ ক্রিকেট প্রতিযোগীতার চূড়ান্ত পর্বের খেলায় রান নিয়ে বিরোধে শেরপুর কলেজের …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *