Mountain View

বাতিল নোট নিয়ে যা করে ব্যাংক

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ১৩, ২০১৬ at ৭:৩৬ অপরাহ্ণ

20161113190514নিউজ ডেস্ক:-ভারত সরকার ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল করেছে। এজন্য দেশজুড়ে নগদ টাকার সংকট দেখা দিয়েছে।পুরনো নোট বদলের জন্য ব্যাংকের লাইনে ভিড় জমাচ্ছেন মানুষ। নতুন নোট তুলতে ছুটে যাচ্ছেন এটিএম বুথে। কিন্তু সেখানকার সেবা থমকে দাঁড়িয়েছে।তবে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেছেন, এটিএম সেবা পুরোপুরি সচল করতে তিন সপ্তাহ লাগতে পারে।এখন প্রশ্ন হচ্ছে, সরকার যে নোট বাতিল করল সেগুলোর কী হবে?রিজার্ভ ব্যাংকের তথ্য বলছে, এ বছরের ৩১ মার্চ পর্যন্ত ৯০২৬.৬ কোটি নোট দেশের বাজারে ছাড়া হয়েছে। এর মধ্যে ২,২০৩ কোটি ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট।৮ নভেম্বর সরকার ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল ঘোষণার পরই অচল হয়ে গিয়েছে এই ২,২০৩ কোটি নোট।

রিজার্ভ ব্যাংক সূত্র জানা যায়, বাতিল ৫০০ ও ১০০০ হাজার নোটগুলোকে কারেন্সি ভেরিফিকেশন অ্যান্ড প্রসেসিং সিস্টেম (সিপিভিএস) পদ্ধতিতে পরীক্ষা করা হবে।এই পদ্ধতির মাধ্যমে দেখে নেয়া হয় নোটগুলো আসল না নকল। ২০০৩-এ সিপিভিএস পদ্ধতি চালু করেন তৎকালীন আরবিআই গভর্নর বিমল জালান।আরবিআই জানায়, আসল নোটগুলোকে রিসাইক্লিং করে নতুন নোট তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। আর সিপিভিএস পদ্ধতিতে পরীক্ষা করার পর যে সব জাল নোট বেরিয়েছে, সেগুলো রিসাইক্লিং করে পেপারওয়েট, ক্যালেন্ডার বানানোর কাজে ব্যবহার করা হয়।কিছু জাল নোট পুড়িয়ে চারকোল তৈরি করা হয়। টেন্ডার ডেকে সেগুলো বিক্রি করা হয়।২০০১ পর্যন্ত ছেঁড়া ও বাতিল হয়ে যাওয়া নোটগুলো বাজার থেকে তুলে নিয়ে আরবিআই সেগুলো পুড়িয়ে ফেলত। কিন্তু এখন সে পদ্ধতি বাতিল হয়ে গেছে।

১৯৯০ সাল পর্যন্ত ব্যাংক অব ইংল্যান্ড অচল ও বাতিল নোটগুলোকে পুড়িয়ে ফেলত।কিন্তু পরে কমপোস্‌ড ট্রিটমেন্টের মাধ্যমে নোটগুলোর প্রক্রিয়াকরণ করে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেয়া হয়।মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফেডেরাল ব্যাংক বাতিল হওয়া নোটগুলোকে ছোট ছোট টুকরোকরে সেগুলো স্যুভেনির হিসেবে বিক্রি করে। এ ছাড়া বিভিন্ন শৈল্পিক কাজেও নোটের টুকরোগুলোকে ব্যবহার করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও

no posts found
Mountain View

কৃষি, অর্থ ও বাণিজ্য এর সর্বশেষ খবর

no posts found
  • কৃষি, অর্থ ও বাণিজ্য - এর সব খবর →
  •