ঢাকা : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, শনিবার, ৭:৪৯ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

অ্যাডাল্ট ফ্রেন্ড ফাইন্ডার হ্যাক থেকে শিক্ষা, অনলাইনে স্বরূপ দেখাবেন না

500x350_5b2f2dbdf505812c23c0800c6e66708f_thumb02144d24142bcabb601e708c1b2a3cfbবিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে ফেললেও এমনকি আপনি নিরাপদ নন। অনলাইনে নিজের নিরাপত্তা রক্ষা করার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো একটি এককালীন ই-মেইল ঠিকানা ব্যবহার করা। যা শুধু একবারই ব্যবহার করা হবে।

হাই প্রোফাইল অ্যাশলে ম্যাডিসন হ্যাকের পর আপনি হয়ত প্রত্যাশা করতে পারেন অনলাইন ডেটিং অ্যাপ সাইটগুলো তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে। কিন্তু সুইঙ্গার বান্ধব অ্যাডাল্ট ফ্রেন্ড ফাইন্ডার সর্বশেষ হ্যাকিংয়ের কবলে পড়ায় এর প্রায় ৩০০ মিলিয়ন অ্যাকাউন্টের সবগুলোই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যা পেন্টহাউস এর মতো সাইট যুক্ত করার পর ৪০০ মিলিয়নে উন্নীত হয়েছে।

কিন্তু এই হ্যাক কাণ্ডে কারো সংবেদনশীল ব্যক্তিগত তথ্য যেমন, যৌনতায় পছন্দের ধরন সম্পর্কিত তথ্য ছিল না। তবে এতে ই-মেইল অ্যাড্রেস, পাসওয়ার্ড এবং আইপি অ্যাড্রেস ছিল- যা একজন মানুষকে বাস্তবে চিহ্নিত করার জন্য যথেষ্ট।

পরিস্থিতি আরো খারাপ হয় যখন কিছু পাসওয়ার্ড সরল টেক্সটে সংরক্ষণ করা হয়। নিরাপত্তা ব্যবস্থায় এটিকে একটি বড় ধরনের পাপ বলে গণ্য করা হয়। আর এই একটি কারণেই আপনার পাসওয়ার্ডগুলো ভিন্ন ভিন্ন অনলাইন সার্ভিস অ্যাকাউন্টে ব্যবহার করা ঠিক না।

সাবেক যে ইউজাররা তাদের অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দিয়েছেন তারাও শান্তিতে বিশ্রাম নিতে পারেন না। কারণ হ্যাকাররা ডিলিট করে দেওয়া ১৫ মিলিয়ন অ্যাকাউন্ট সহ গত দুই দশকের তথ্য-উপাত্ত পেয়েছেন। কারণ ডিলিট করে দেওয়া অ্যাকাউন্টগুলো সিস্টেম থেকে পুরোপুরি মুছে ফেলা হয়নি। এতে এমন সাইটও অন্তর্ভুক্ত আছে যা অ্যাডাল্ট ফ্রেন্ড ফাইন্ডার নেটওয়ার্কও আর নিজের বলে দাবি করে না। উদারহণত, পেন্টহাউস।

আপনি যদি এমন সাইট অনুমোদন না করেন তাহলে হয়ত ভিকটিমদের দোষারোপ করাও সহজ। যদিও আপনি এটা ভেবে একটু সহানুভূতিশীল হতে পারেন যে, অ্যাশলে ম্যাডিসনের মতো অ্যাডাল্ট ফ্রেন্ড ফাইন্ডারও বিশেষভাবে জীবনসঙ্গী বা সঙ্গিনীকে প্রতারণার লক্ষ্য নিয়ে তৈরি করা হয়নি।

সুতরাং কোনো অনলাইন সার্ভিসে অ্যাকাউন্ট নিবন্ধনের সময় কখনোই আপনার প্রধান ই-মেইল অ্যাড্রেসটি ব্যবহার করবেন না। তবে তার মানে এই নয় যে আপনাকে মিথ্যাচার করতে হবে।

মাত্র দুই মিনিটেই জিমেইল ই-মেইলে একটি নতুন অ্যাকাউন্ট করা যায়। সুতরাং সংবেদনশীল কোনো অনলাইন সার্ভিসে অ্যাকাউন্ট নিবন্ধন করার সময় মাত্র একবার ব্যবহারের জন্য একটি নতুন ই-মেইল অ্যাকাউন্ট নিবন্ধন করুন। আর ওই সাইট থেকে আপনার প্রধান ইনবক্সে ই-মেইল পাঠানোর জন্য একটি ফিল্টারিং নিয়ম তৈরি করাও খুব সহজ। যাতে আপনি যারা আপনাকে আরেকটু ভালো করে জানতে চান তাদের কাছ থেকে আসা কোনো বার্তা মিস না করেন।

বিকল্পভাবে আপনি হয়ত চেক করতে পারেন আপনার ই-মেইল সার্ভিস আপনাকে ছদ্মনাম ব্যবহার করতে দিচ্ছে না- এটি মূলত একটি ভুয়া ই-মেইল অ্যাড্রেস যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার প্রধান ই-মেইল অ্যাড্রেসে মেসেজ ফরোয়ার্ড করে দেবে।

এ সম্পর্কিত আরও

Best free WordPress theme

Check Also

সাবধান! মোবাইলে ‘হ্যাঁ’ বললেই বিপদ

যদি আপনার মোবাইল ফোনে কোন রহস্যজনক নম্বর থেকে ফোন করে জিজ্ঞাসা করা হয়, ‘আমার কথা …