Mountain View

মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তদন্ত কমিটি গঠন

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ১৬, ২০১৬ at ৫:৩২ অপরাহ্ণ

ঝালকাঠিতে নিহত মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষক আব্দুস ছালাম খানের শরীরে ১১টি আঘাতের চিহ্ন পেয়েছে ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক।full_630401488_1479294514

বুধবার দুপুরে ঝালকাঠিতে নিহতের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ঝালকাঠি সিভিল সার্জন ডা. আব্দুর রহিম বলেন, নিহত মুক্তিযোদ্ধার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ১১টি আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তবে ভিসারা রিপোর্ট সম্পন্ন হওয়ার পর নিশ্চিত করে মৃত্যুর কারণ বলা যাবে।

মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ঝালকাঠি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ঝালকাঠি জেলা প্রশাসক মো. মিজানুল হক চৌধুরী বলেন, মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ঝালকাঠি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মানিক রহমানকে প্রধান করে এক সদস্যের এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী ১ ডিসেম্বরের মধ্যে তাকে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

প্রসঙ্গত, মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষক ছালাম খানের বাবার নামে প্রতিষ্ঠিত আব্দুর রহমান খান কিন্ডারগার্টেনে শিক্ষকতা করতো রাজাপুরের আমতলি গ্রামের মরিয়ম আক্তার মুক্তা। ৩ মাসের বেতন বাকি থাকায় তা পরিশোধ করতে শিক্ষক মরিয়ম আক্তার মুক্তার বাড়িতে যান।

এ সময় স্থানীয় সাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগ সদস্য বাচ্চু হাওলাদার ও ৬নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি শাহ আলমের নেতৃত্বে কয়েকজন ওই মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে আহত করে। পরে আহতাবস্থায় মঙ্গলবার সকালে নিজ বাড়িতে মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে শামসুল আলম মুরাদ বাদী হয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও সাতুরিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য বাচ্চু হাওলাদার ও ৬নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি শাহ আলমসহ নামধারী ৮ জনসহ আরও ২/৩ জনকে আসামি করে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজাপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেছে।

রাজাপুর থানার ওসি মুনির উল গিয়াস বলেন, মামলার পর থেকে অভিযুক্তরা পালিয়ে আছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

এ সম্পর্কিত আরও