ঢাকা : ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, শনিবার, ৬:২৪ পূর্বাহ্ণ
সর্বশেষ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

বিএনপি হলো বাংলাদেশ নালিশ পার্টি: ওবায়দুল কাদের

7de6660699a9f18a4fdd98de2e955511x600x400x34স্টাফ রিপোর্টার :বিএনপিকে বাংলাদেশ নালিশ পার্টি বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘বিএনপিকে নিয়ে ভাববেন না। তাদের কর্মসূচি হলো নালিশ করা। যাদের নিজের দেশের জনগণের প্রতি আস্থা নেই, তারা বিদেশের দিকে তাকিয়ে থাকে। এ কারণে ভারতের নির্বাচনে মোদি জয়লাভ করার পরদিন ভারতীয় দূতাবাসের দরজা খোলার আগে বিএনপির শতশত নেতা মিষ্টি ও ফুল নিয়ে দরজার সামনে হাজির হয়ে যান। দিল্লির মসনদে মোদি, আর ঢাকায় বসে বিএনপি নৃত্য করে।’

 গতকাল বুধবার বিকেলে কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ মাঠে জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, ‘এবার আমেরিকার নির্বাচনের আগে বিএনপি নেতাদের মধ্যে শোরগোল পড়ে গেলো- হিলারি জিতে গেল, হিলারি জিতে গেল। ঢাকায় মণকে মণ মিষ্টি প্রস্তুত ছিল। তবে এবারও হতাশ হতে হলো বিএনপিকে।’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ্য করে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আপনি কুষ্টিয়া এসে দেখে যান, জনগণ আওয়ামী লীগের পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ। শেখ হাসিনার শক্তি বাংলাদেশের জনগণ। তাই শেখ হাসিনার সরকার বারবার দরকার।’ তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনা প্রগতি ও উন্নয়নের নেতৃত্ব দিচ্ছেন আর খালেদা জিয়া দেশে জঙ্গিবাদের।’ বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, জঙ্গী দমনে শেখ হাসিনা বিশ্বের রোল মডেল। শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও তার জঙ্গিদমন পদ্ধতি অবলম্বন করে শুধু বাংলাদেশে নয়, বৈশ্বিক সন্ত্রাসাবাদ ও জঙ্গিবাদ দমন সম্ভব হবে। দেশের মানুষ বুঝতে পেরেছে, উন্নয়নের জননী শেখ হাসিনা। তিনি যোগ করেন, ‘জনগণ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ ঐক্যবদ্ধ। আর তাই স্লোগান হওয়া উচিত- বারবার দরকার শেখ হাসিনা সরকার। আরেকবার দরকার শেখ হাসিনা সরকার।’ আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ‘বাংলাদেশ অনেকটাই স্বয়ংসম্পূর্ণ। ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসেবে গড়ে উঠছে। পদ্মাসেতু নিজেদের অর্থায়নে করা হচ্ছে এবং কর্ণফুলী টানেলও হবে। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ, চিকিৎসাসেবা পাচ্ছে মানুষ, ডিজিটাল সেবা চলে গেছে গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে, সেখানে বিদ্যুৎ বিল থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের সেবা দেওয়া হচ্ছে। রাস্তাঘাট আর আগের মতো নেই। আমূল পরিবর্তন হচ্ছে। আর এসব কেবল সম্ভব হয়েছে আওয়ামী লীগ সরকারের কারণে।’ হঠাৎ করে আওয়ামী লীগে কেউ ‘বসন্তের কোকিল’ এর মতো এসে ঠাঁই পাবে না উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা আরও বলেন, ‘দলের অভ্যন্তরে কোনও সমস্যা থাকলে সেগুলো দ্রুত সমাধান করে নেত্রীর নির্দেশে আগামী জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে হবে। তবে কোনও হাইব্রিড নেতা আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের নেতাকর্মীদের কোণঠাসা করতে পারবে না। তাই আগামী ২০১৯ সালের নির্বাচনে এই কুষ্টিয়াসহ খুলনা বিভাগের ৩৭টি আসনেরই আওয়ামীলীগের প্রার্থীর বিজয়ী দেখতে চাই।’

কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী মির্জা আযম, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, ডাঃ দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওদেল, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্র লীগের সাবেক সভাপতি একেএম এনামুল হক শামীম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, পৌর মেয়র আনোয়ার আলীসহ কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য রাখেন। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শক্ত ঘাঁটি হচ্ছে এই কুষ্টিয়া। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেখেছেন এই কুষ্টিয়ার মানুষ কীভাবে আওয়ামী লীগকে ভালোবাসে।’

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডাঃ দীপু মনি তার বক্তব্যে বলেন, ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ শুধু কুষ্টিয়ার রাজনীতি সুসংগঠিত করেনি। সারা বাংলাদেশের আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করেছে। যার কারণে আমরা তাকে নিয়ে গর্ববোধ করি।’ তিনি বলেন, শেখ হাসিনা বিশ্বনন্দিত মানুষ হিসেবে সারাবিশ্বের মানুষ বলতে শুরু করেছে। এবং এত দ্রুত কীভাবে এই বাংলাদেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে সেইসব নিয়েও বিশ্লেষণ করছে।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা ওবায়দুল কাদেরের হাতে ফুল ও একটি সম্মাননা ক্রেস্ট উপহার দেন। এসময় কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজাউল হক চৌধুরী, কুষ্টিয়া- (খোকসা-কুমারখালী) আসনের সংসদ সদস্য আবদুর রউফ, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি হাজী রবিউল ইসলাম, কুষ্টিয়া শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি তাইজাল আলী খান, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি গোলাম মোস্তফা, সাধারন সম্পাদক আমজাদ আলী খানসহ কেন্দ্রীয় ও জেলা নেতৃবৃন্দ ছাড়া পার্শ্ববর্তী জেলার আওয়ামী লীগের নেতারা ছিলেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

0ccf8b71888c0b001e2a62ccc7eaadecx624x405x37

নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে আবারও সেনা দাবি বিএনপির

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সবগুলো কেন্দ্র ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ বলে রিটার্নিং কর্মকর্তা চিহ্নিত করার পরিপ্রেক্ষিতে আবারও সেনা …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *