ঢাকা : ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, শুক্রবার, ৯:৪৪ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

মজলুম জননেতা একজনই, তিনি হলেন মওলানা ভাসানী

Bhashani

নিউজ ডেস্ক: নিপীড়িত-নির্যাতিত মানুষের মুক্তির দূত ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী ছিলো গতকাল। বাংলাদেশের অভ্যূদয়ের ইতিহাসে যার অপরিসীম অবদান। ইতিহাস বলছে বাংলাদেশের মজলুম জননেতা একজনই আর তিনি হলেন মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতির জন্মদিনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে কোন কর্মসূচী নেয়া না হলেও দেশের সাধারণ মানুষ বিনম্র শ্রদ্ধায় তাকে স্মরণ করেছে।

 নিপীড়িত-নির্যাতিত মানুষের মুক্তির দূত মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৭৬ সালের এই দিনে ইন্তেকাল করেন তিনি। মওলানা ভাসানী তার দীর্ঘ কর্মময় জীবনে সাধারণ মানুষের জীবনমান উন্নয়ন ও সমাজ-রাষ্ট্রে তাদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম নিরলসভাবে করে গেছেন। তিনি ছিলেন নিপীড়িত-নির্যাতিত মানুষের মুক্তির আন্দোলন-সংগ্রামের অগ্রণী কিংবদন্তি।

দিবসটি যথাযোগ্যভাবে পালনের জন্য বিভিন্ন সংগঠন বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এ উপলক্ষে টাঙ্গাইলের সন্তোষে মরহুমের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন, আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। মওলানা ভাসানী মৃত্যুবার্ষিকী পালন জাতীয় কমিটি, বিএনপি, ভাসানী স্মৃতি পরিষদ, ন্যাপ-ভাসানীসহ বিভিন্ন সংগঠন পৃথক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

ভাসানীর আদর্শ নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করবে রাষ্ট্রপতি মজলুম জননেতা মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর আদর্শ নতুন প্রজন্মকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করবে।

তিনি বলেন, মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ছিলেন স্বাধীনতা আন্দোলনের অন্যতম পথিকৃৎ। ১৯১৯ সালে ব্রিটিশ বিরোধী অসহযোগ ও খেলাফত আন্দোলনে যোগদানের মধ্য দিয়ে তাঁর রাজনৈতিক জীবনের সূচনা হয়। দীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি দেশ ও জনগণের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে গেছেন। তার নেতৃত্বের ভিত্তি ছিল কৃষক-শ্রমিক-সাধারণ জনগণ।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এক বাণীতে মওলানা ভাসানীর প্রদর্শিত পথ অনুসরণের আহ্বান জানান।

টাঙ্গাইলে বিভিন্ন অনুষ্ঠান
টাঙ্গাইল প্রতিনিধি জানান, আজ ১৭ নভেম্বর বৃহস্পতিবার মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানীর ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী।

এ উপলক্ষ্যে মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খতমে কোরআন, মিলাদ মাহফিল ও আলোচনাসহ নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এছাড়া মওলানা ভাসানী ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনও গ্রহণ করেছে পৃথক কর্মসূচি।

১৮৮০ সালের ১২ ডিসেম্বর সিরাজগঞ্জের ধানগড়া গ্রামে মওলানা ভাসানীর জন্ম। সিরাজগঞ্জে জন্ম হলেও মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী তার জীবনের সিংহভাগই কাটিয়েছেন টাঙ্গাইলের সন্তোষে। সন্তোষের মাটিতেই তিনি চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

অস্ট্রেলিয়ায় যাচ্ছেন মেহেদী মারুফ

একেএস বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি২০ ২০১৬ তে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে নিজের প্রতিভার পরিচয় দিয়েছেন …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *