Mountain View

ড্রাগের সাথে নাম জড়িয়েছেন যে তারকারা

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২০, ২০১৬ at ৭:১৮ পূর্বাহ্ণ

20161120071534

 

 

 

 

বলিউড তারকাদের নিয়ে জল্পনা কল্পনার শেষ নেই। তাদের নিয়ে নানা সময় নানা বিতর্ক দানা বেঁধেছে। তাদের বিরুদ্ধে কখনো কখনো উঠেছে আইনবিরুদ্ধ অভিযোগও। যার মূলে রয়েছে ড্রাগ। যা সেবন বা বিক্রি ভারতে নিষিদ্ধ। কিন্তু কিছু বলিউড তারকা এই ধরনের কাজেও জড়িয়ে পড়েছেন। কারা সেসব তারকা, যারা এই ধরনের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন? আসুন জেনে নেয়া যাক-

রণবীর কাপুর: রণবীর একটি সাক্ষাৎকারে নিজেই জানিয়েছিলেন নিজের ড্রাগ সেবন সংক্রান্ত তথ্য। তিনি বলেছিলেন, যৌবনে ফিল্ম স্কুলে ছাত্র থাকাকালীন তিনি মাদক নিতেন। পরবর্তীকালে ‘রকস্টার’ নামক ফিল্মে অভিনয়ের সময় চরিত্রটিকে যথাযথ ফুটিয়ে তোলার জন্য তিনি নাকি আবারও সাময়িকভাবে ড্রাগ সেবন করেছিলেন।

ফারদিন খান: ২০০১ সালে ফারদিন ড্রাগ কেনার অভিযোগে পু‌লিশের হাতে গ্রেফতার পর্যন্ত হয়েছিলেন। তার কেনা ড্রাগের পরিমাণ অল্প ছিল, এবং তিনি প্রথমবার এই অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছেন বলেই তার বিরুদ্ধে লঘু ধারায় মামলা দায়ের করেছিল পুলিশ। সেই কারণেই বেশি আইনি ঝামেলা পোহাতে হয়নি ফারদিনকে।

সুজান খান: হৃত্বিকের এই প্রাক্তন স্ত্রী-ও মাদকে আসক্ত ছিলেন। মুম্বাইয়ের নানা গোপন পার্টিতে তাকে নিয়মিত দেখা যায়, যেসব পার্টিতে নাকি গোপনে ড্রাগ সেবন করা হয়ে থাকে‌। এমনকী, একথাও অনেক বলেন যে, হৃত্বিকের সঙ্গে সুজানের ডিভোর্সের একটা বড় কারণও নাকি সুজানের এই মাদকাসক্তি।

সঞ্জয় দত্ত: প্রথম জীবনে সঞ্জয় যে ড্রাগের নেশায় রীতিমতো আসক্ত ছিলেন, একথা সংবাদমাধ্যমে বহুবার আলোচিত হয়েছে। ১৯৮২ সালে মাদক সেবনের অভিযোগে তার ৫ মাস জেল পর্যন্ত হয়েছিল। জেল থেকে মুক্তির পর বাবা সুনীল দত্ত ছেলেকে আমেরিকার একটি নেশামুক্তি কেন্দ্রে পাঠিয়ে দেন। সেখানে চিকিৎসার পর ড্রাগের নেশা থেকে মু্ক্তি পান তিনি।

বিজয় রাজ: ভাল অভিনেতা ও কমেডিয়ান হিসেবে বিজয় পরিচিত। ‘রান’ ফিল্মে কমিক রোলে তার অভিনয় নজর কেড়েছিল অনেকেরই। কিন্তু বিজয়ও নিয়মিত ড্রাগ সেবন করেন বলে শোনা যায়। এমনকী ২০০৫ সালে দুবাই এয়ারপোর্টে ড্রাগ চালান করার অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতারও পর্যন্ত করেছিল।

অপূর্ব অগ্নিহোত্রী ও শিল্পা অগ্নিহোত্রী: টেলিভিশন তারকা ও বাস্তব জীবনের স্বামী-স্ত্রী অপূর্ব ও শিল্পা ২০১৩ সালে মুম্বাইয়ের অদূরে একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত একটি রেভ পার্টি থেকে গ্রেফতার হন। তাদের বিরুদ্ধে ড্রাগ সেবনের অভিযোগ ছিল।

গৌরী খান: তালিকার এই শেষ নামটাই চমকে দেয়ার মতো। শাহরুখ খানের স্ত্রী, গৌরী খান, যাকে বলিউডের ‘ফার্স্ট লেডি’ বলেন অনেকে, তিনিও একদা ড্রাগ চালানের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছিলেন। বছর দু’য়েক আগে বার্লিন এয়ারপোর্টে ড্রাগ সমেত তিনি ধরা পড়েছিলেন বলে শোনা যায়। গৌরী অবশ্য পরবর্তীকালে এই সমস্ত অভিযোগই গুজব বলে উড়িয়ে দেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View