Mountain View

ধর্ষণের দায় স্বীকার করে “রুবেল” এর জবানবন্দি

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২০, ২০১৬ at ৭:০৭ অপরাহ্ণ

বিচারকের খাসকামরা থেকে পালিয়ে যাওয়া গারো তরুণী ধর্ষণের মামলায় আসামী রাফসান হোসেন রুবেল আদালতে দোষ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আজ রোববার (২০ নভেম্বর) সে ঢাকা মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট সাদবির ইয়াছির আহসান চৌধুরী কাছে এ স্বীকারোক্তি প্রদান করে জবানবন্দি দেন। জবানবন্দি শেষে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।14971931_1802403960027925_292593853_n

এর আগে গত ১১ নভেম্বর বিমানবন্দর রেলস্টেশন এলাকা থেকে র‌্যাব এ আসামীকে আটক করে। গত ১৩ নভেম্বর তাকে আদালতে হাজির করার পর সে দোষ স্বীকার করতে রাজী হওয়ায় বিচারকের খাসকামরায় নেওয়া হলে সেখান থেকে কৌসলে সে পালিয়ে যায়। এরপর গত ১৫ নভেম্বর সে পুনরায় গ্রেপ্তার হলে ওইদিন আদালত তার ৬ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ওই রিমান্ড শেষে রোববার সে স্বীকারোক্তি দিলেন। ধর্ষণ, ছিনতাই, চাঁদাবাজি ও প্রতারণাসহ কমপে ২০টি অভিযোগ রয়েছে বাড্ডার ‘ত্রাস’ বলে পরিচিত পালিয়ে যাওয়া এই রুবেল। সর্বশেষ গত ২৫ অক্টোবর রাজধানীর বাড্ডা এলাকায় এক গারো তরুণীকে ধর্ষণ করেন। ওই গারো তারুণী ঢাকায় একটি বিউটি পার্লারে কাজ করে।

গত ২৫ নভেম্বর বিকেলে সে উত্তর বাড্ডা হাসান উদ্দিন সড়কের ৩ নম্বর লেনের মিশ্রীটোলায় হাজী রুহুল আমীরে মেসের ভাড়াটিয়া তার হবু স্বামী রিপন স্ট্রংয়ের সঙ্গে দেখা করতে আসেন। ওই সময় মেসের বাসিন্দা সালাউদ্দিন (সালু) মোবাইল ফোনে কল করে তার পূর্ব পরিচিত সন্ত্রাসী আল আমিন, রনি, সুমন ও নাজমুলসহ স্থানীয় সন্ত্রাসী রুবেলকে মেসে ডেকে আনে।

তারা ভিকটিমের হবু স্বামীর কাছ থেকে মেসে মহিলা আনার অজুহাতে ফাঁদে ফেলে ১৭ হাজার টাকা ও তার ব্যবহৃত স্মার্ট ফোনটি (হুওয়াই) নিয়ে নেয়। পরে ধর্ষক রুবেল ও তার সহযোগী সালাউদ্দিন (সালু) মিলে ওই গারো তরুণীকে প্রাণের ভয় দেখিয়ে হাজী মোশারফ মিয়ার পরিত্যক্ত বাসার একটি রুমে নিয়ে ধর্ষণ করে।

এ সম্পর্কিত আরও

আপনিও লিখুন .. ফিচার কিংবা মতামত বিভাগে লেখা পাঠান [email protected] এই ইমেইল ঠিকানায়
সারাদেশ বিভাগে সংবাদকর্মী নেয়া হচ্ছে। আজই যোগাযোগ করুন আমাদের অফিশিয়াল ফেসবুকের ইনবক্সে।