Mountain View

পাঁচের দশক থেকেই বিশ্বের দরবারে পৌঁছে গেছে বাংলা ছবি : পাওলি

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২১, ২০১৬ at ৬:০১ অপরাহ্ণ

95798e2e0fcc01b1fb1916aa4ff14f35x800x481x38১৯৫৬ সালে কান ফেস্টিভালে পুরস্কার পেয়েছিল সত্যজিৎ রায়ের পথের পাঁচালি। বেস্ট হিউম্যান ডক্যুমেন্টের পুরস্কার পেয়েছিল ছবিটি। তারপর ঋত্বিক ঘটক, মৃণাল সেনদের হাত ধরে অনেক বাংলা ছবি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে গেছে। সেক্ষেত্রে বলা যেতে পারে গত শতাব্দীর পাঁচের দশক থেকেই বিশ্বের দরবারে বাংলা ছবি পৌঁছে গেছে। গতকাল সিনেমা নিয়ে আড্ডায় বলছিলেন পাওলি দাম।

সম্প্রতি  কলকাতা এক  সিনেমার আড্ডায় আলোচ্য বিষয় ছিল বিশ্বের দরবারে বাংলা ছবি। এই বিষয়ে আলোচনা করতে উপস্থিত হয়েছিলেন কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়, গৌতম ভট্টাচার্য এবং অনিন্দ চট্টোপাধ্যায়। সঞ্চালক ছিলেন অভিনেত্রী ও পরিচালক সুদেষ্ণা রায়।

অনুষ্ঠানে পাওলি জানান, বিশ্বের দরবারে বাংলা ছবিকে পৌঁছে দিতে যেটা দরকার, তা হলো ছবির উৎকর্ষ। আজকের যুগে বাংলা ছবি একমাত্র বিজ্ঞাপনের মাধ্যমেই বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌছতো পারে। সারা বিশ্বজুড়ে প্রায় ৩ হাজারটি চলচ্চিত্র উৎসব হয়। তার মধ্যে হয়তো কয়েকটি ফেস্টিভালের নাম কানে আসে। কান, বার্লিন, টোরন্টো, টোকিও ইত্যাদি। আরও অনেক ফেস্টিভাল হয়, যার নাম অনেকেই জানে না। সেক্ষেত্রে এমন একটা ডিপার্টমেন্ট যদি থাকতো, যেখান থেকে পরিচালকরা অনেক সহজে ফেস্টিভাল সংক্রান্ত তথ্য পেতেন তাহলে আরও সহজে বাংলা ছবি বিশ্বের দরবারে পৌঁছতে পারবে। তবে শুধু পরিচালক নন।  দায়িত্ব নিতে হবে প্রযোজকদেরও। তাদেরও বুঝতে হবে কোন চলচ্চিত্র উৎসবে তাদের ছবি পাঠানো সম্ভব। ফিল্ম ফেস্টিভালে ছবির অ্যাপ্রিসিয়েশন হয়। দর্শক তো বটেই, পরিবেশকরাও থাকেন সেখানে। বাংলা ছবি যদি আরও বেশি করে ফিল্ম ফেস্টিভালে দেখানো হয়, তাহলে বিশ্বের দরবারে বাংলা ছবিকে আরও বেশি করে পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে। জানান পাওলি।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View