Mountain View

মমিনুল-প্যাটেল জুটিতে রুদ্ধশ্বাস জয় রাজশাহীর

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২১, ২০১৬ at ৫:০৮ অপরাহ্ণ

ppp

মমিনুল হক এবং সামিট প্যাটেলের শতরানের জুটিতে ঢাকা ডায়নামাইটসকে ৩ উইকেটে হারিয়ে দুর্দান্ত জয় তুলে নিল রাজশাহী কিংস। এই দুজনের হাফ সেঞ্চুরিতে টানটান উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ঢাকার দেওয়া ১৮৩ রানের লক্ষ্যে ১ বল বাকি রেখেই জয়ে পৌঁছে যায় রাজশাহী। ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন সামিট প্যাটেল। এর আগে চট্টগ্রামের শহীদ জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) এর আজ সোমাবারের প্রথম খেলায় টসে জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেয় সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটস।

দলীয় ১২ রানেই ফিরে যান ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকী। ২ বলে চার রান করে ডোয়াইন ব্র্যাভোর বলে তিনি কুমার সাঙ্গাকারার বিশ্বস্ত হাতে ধরা পড়েন। এরপর ক্রিজে আসেন চলতি বিপিএলের একমাত্র সেঞ্চুরিয়ান সাব্বির রহমান। তিনি হাত খুলতে শুরু করার আগেই নাসিরের দুর্দান্ত ক্যাচে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। মোহাম্মদ শহিদের বলে লং অনের ওপর দিয়ে ছক্কা মারতে গিয়ে নাসিরের দারুণ ক্যাচে পরিণত হওয়ার আগে সাব্বির করেন ৯ বলে ১ বাউন্ডারিতে ৭ রান। এরপর দলের হাল ধরেন মমিনুল হক এবং সামিট প্যাটেল।

ধুমধাড়াক্কা ব্যাটিংয়ে ২৬ বলে ৫০ রানের মাইলফলকে পৌঁছান সামিট। এর অল্পসময় পর ৩৮ বলে চলতি আসরের তৃতীয় হাফ সেঞ্চুরি পূরণ করেন মমিনুল। তাদের জুটি থেকে আসে ৭০ বলে ১০০ রান। শেষ পর্যন্ত ৪২ বলে ৮ চার এবং ১ ছক্কায় ৫৬ রান করে মমিনুল আউট হলে ভাঙে এই জুটি। তার আউটের পেছনে আবারও সেই বোলার শহিদ আর ফিল্ডার নাসির জুটি। ব্যাট হাতে আরও কিছুক্ষণ ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়ে সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিতে বোল্ড হয়ে যান সামিট প্যাটেল। ৩৯ বলে ৫টি চার এবং ৬টি ছক্কা হাঁকিয়ে তিনি ৭৫ রান করেন।

জয় থেকে ২৩ রান দূরে থাকতে আবারও উইকেট পতন ঘটে রাজশাহীর। ডোয়াইন ব্র্যাভোর বলে তার হাতেই ধরা পড়েন উমর আকমল। জয় থেকে মাত্র ১১ রান দূরে থাকতে ড্যারেন স্যামি (৯) ফিরে গেলে রাজশাহীর কপাল চিন্তার ভাঁজ পড়ে। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি শেষ ওভারে ৯ রানের সমীকরণে এসে পৌঁছে। বোলার সাকিব আল হাসান ওভারের প্রথম বলেই ফিরিয়ে দেন আবুল হাসানকে। তবে নাটকের তখনও অনেক বাকি। তৃতীয় বলে বাউন্ডারি হাঁকালেন ফরহাদ রেজা। পঞ্চম বলে চার মেরে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান মেহেদী হাসান মিরাজ।

এর আগে শুরুটা ধীরে হলেও শ্রীলঙ্কান গ্রেট কুমার সাঙ্গাকারার হাফ সেঞ্চুরি এবং দুটি বড় পার্টনারশিপের দৌলতে বড় স্কোর সংগ্রহ করে ঢাকা ডায়নামাইটস। ৩৬ বলে দুই ওপেনার তুলে ফেলে ৫০ রান। শেষ পর্যন্ত ৭১ রানে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি। আবুল হাসানের বলে সাব্বির রহমানের হাতে ধরা পড়েন মেহেদী মারুফ। ২৫ বলে ৩ চার এবং ২ ছক্কায় ৩৫ রান করেন এই ওপেনার। এরপর সাঙ্গাকারার সঙ্গী হন মোসাদ্দেক হোসেন। ১৭ বল খেলে মাত্র ১৩ রান সংগ্রহ করে দলীয় ১১৯ রানে ফরহাদ রেজার বলে তার হাতেই ধরা পড়েন এই তরুণ। এই দুজনের দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে আসে ৪৮ রান।

এরই মধ্যে সাঙ্গাকারা তুলে নেন চলতি বিপিএলের নিজের প্রথম হাফ সেঞ্চুরি। ৩৮ বলে ৪টি চার এবং ২ ছক্কায় ৫০ পূরণ করেন তিনি। ২ রানের ব্যবধানে ফরহাদ রেজার বলে আবুল হাসানের হাতে ধরা পড়েন তিনি। তার ৪৬ বলে ৬৬ রানের ইনিংসটিতে যোগ হয় আরও একটি চার এবং একটি ছক্কা।

দলীয় রান ১৩৮ হতে আবারও উইকেট পতন। এবার মোহাম্মদ সামির বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে যান ম্যাট কোলেস (৮)। ম্যাচের হাল ধরেন আগের ম্যাচের ব্যাটিং তাণ্ডব চালানো সেকুজে প্রসন্ন এবং অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

আগের ম্যাচের মতই ব্যাটি ঝড় তোলেন প্রসন্ন। ১৬ বলে ২ চার এবং ৩ ছক্কায় তার ব্যাট থেকে আসে ৩৪ রান। পাশাপাশি হাত খুলে ব্যাট করেন অধিনায়ক সাকিব।  ১২ বলে ৩ বাউন্ডারিতে তিনি করেন ১৮ রান। তাদের ব্যাটিং দৃঢ়তায় নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮২ রান সংগ্রহ করে ঢাকা ডায়নামাইটস।

এ সম্পর্কিত আরও