ঢাকা : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭, রবিবার, ১২:১৪ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

আশুলিয়ায় লাইটার কারখানায় দগ্ধ এক কিশোরীর মৃত‌্যু

cymera_20161123_110606

ঢাকার আশুলিয়ায় গ্যাস লাইটার কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শ্রমিকদের মধ‌্যে এক কিশোরীর মৃত‌্যু হয়েছে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল জানান, আঁখি নামের ১৬ বছর বয়সী মেয়েটির শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল। পাশাপাশি তার শ্বাসনালী মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।

গতকাল (মঙ্গলবার) বিকালে আশুলিয়ার জিরাবো এলাকার ‘কালার ম্যাক্স (বিডি) লিমিটেড’ নামের ওই কারখানায় আগুন লাগলে ২৬ জন দগ্ধ হন।

তাদের মধ‌্যে ২০ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে আঁখির মৃত‌্যু হয় বলে পার্থ শংকর পাল জানান।

তিনি বলেন, “আশুলিয়া থেকে যারা এসেছেন তাদের সবাই নারী। তাদের শরীরের ২০ থেকে ৭০ শতাংশ পুড়ে গেছে। কারও অবস্থাই ভালো নয়।”

আঁখিদের বাড়ি রংপুরের মিঠাপুকুরে, তার বাবার নাম আশরাফুল। আরও প্রায় একশ শ্রমিকের সঙ্গে আশুলিয়ার ওই গ‌্যাস লাইটার কারখানায় কাজ করতেন আঁখি।

ওই কারখানায় ঠিক কীভাবে আগুন লেগেছিল, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে গ্যাস লাইটার তৈরি হত বলে সেখানে দাহ‌্য সামগ্রীর অভাব ছিল না। অগ্নিকাণ্ডের আগে বিকট শব্দ হয়েছিল বলেও স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

ইপিজেড ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আব্দুল হামিদ মিয়া জানান, সাভার ও ইপিজেডের পাঁচটি ইউনিট প্রায় সোয়া দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও ততক্ষণে টিনের তৈরি কারখানার তিনটি শেড পুড়ে যায়।

ওই ঘটনায় দগ্ধদের মধ‌্যে পাঁচজনকে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও আরেকজনকে উত্তরার ইস্টওয়েস্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এ সম্পর্কিত আরও

Best free WordPress theme

Check Also

জঙ্গিদের তৎপরতা অনেকাংশে কমে গেছে: আইজিপি

পুলিশের মহাপরিদর্শক একেএম শহীদুল হক বলেছেন, জঙ্গি সংগঠনের তৎপরতা অনেকাংশে কমে গেলেও সমাজে তাদের অস্তিত্ব …