উত্তপ্ত সংসদেও হাসি চেপে ধরে রাখতে পারলেন না মোদি!

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৪, ২০১৬ at ৯:৫০ অপরাহ্ণ

e403cc396632cb8bab023dff76f5e58dx800x481x37আন্তর্জাতিক ডেস্ক : তীব্র বিরোধী বিক্ষোভের জেরে আজ ভারতের রাজ্যসভায় হাজির হন তিনি। আর তাকে স্বাগত জানাতে যে বিরোধীরা প্রস্তুত ছিল, তাও বুঝতে পারলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং থেকে সমাজবাদী পার্টি, তৃণমূল কংগ্রেস – সব বিরোধী দলের আক্রমণের নিশানায় ছিলেন তিনি। কিন্তু, এত হইচই বিক্ষোভের মধ্যেও প্রধানমন্ত্রীর হাসিমুখ ছবি ধরা পড়ল টেলিভিশনের ক্যামেরায়।

তীব্র বিক্ষোভ ও বিরোধিতার মাঝেও প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রী মুখে হাসি ফোটালেন বিরোধী দলেরই এক সাংসদ। নরেশ আগরওয়াল। সমাজবাদী পার্টির এই সাংসদের টিপ্পনীতে হাসির রোল উঠল ট্রেজারি বেঞ্চ সহ রাজ্যসভায়।

বক্তব্য

রাখতে গিয়ে প্রথমেই প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক বক্তব্যকে হাতিয়ার করেন নরেশ আগরওয়াল। সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশের এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘আমাকে রুখতে ওরা খুন করতে পারে।’ সেই প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে সমাজবাদী পার্টির সাংসদ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীজি আপনি আবেগপ্রবণ হয়ে এমন বলবেন না। আপনি আমাদের রাজ্যে (উত্তরপ্রদেশ) যত ইচ্ছা ঘুরে বেড়ান। কেউ হামলা করবে না। উত্তরপ্রদেশে আইনশৃঙ্খলা খুব ভালো।’

বিরোধী সাংসদের এই টিপ্পনীতে হাসি চাপতে পারেননি ভারতের প্রধানমন্ত্রী। তার পাশে বসা ভারতের অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিকেও হাসতে দেখা যায়। বিজেপি সাংসদরা নরেশ আগরওয়ালকে পালটা আক্রমণ করলেও, হাসি প্রায় সবার মুখেই ছিল।

তবে এতেই থেমে থাকেননি উত্তরপ্রদেশের হারদই-এর সাংসদ। নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের গোপনীয়তা নিয়েও টিপ্পনী করেন তিনি, ‘কেন্দ্রের শাসকদলের তরফে দাবি করা হয়ে থাকে, নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত জানতেন না অরুণ জেটলি। এটা সত্যি হতে পারে। কারণ জেটলিজির সঙ্গে আমার পরিচয় আছে। উনি জানলে নিশ্চয়ই আমায় কানে কানে বলে দিতেন’। একে অপরের দিকে একবার তাকিয়ে হেসে ফেলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি ও অর্থমন্ত্রী জেটলি।

শোরগোল, হইচই, বিরোধিতার মাঝে হাসির এই মুহূর্ত কিন্তু ভারতীয় সংসদের ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ইন্ডিয়া টাইমস

এ সম্পর্কিত আরও