Mountain View

কলের মিস্ত্রি থেকে বিশ্বের সেরা মিক্সড মার্শাল আর্টস সুপারম্যানে মুগ্ধ কোহলিও

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৪, ২০১৬ at ২:৫৪ অপরাহ্ণ

e403cc396632cb8bab023dff76f5e58dx800x481x37স্পোর্টস ডেস্ক: মাঠে তাঁর আগ্রাসী মানসিকতা এবং আকর্ষণীয় ব্যক্তিত্ব নিয়ে উত্তাল ক্রিকেটবিশ্ব। কিন্তু বিরাট কোহলি তাঁর নায়ক হিসাবে কাকে বেছে নিচ্ছেন?

বুধবার সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটে ভারত অধিনায়ক পোস্ট করেছেন এমএমএ (মিক্স মার্শাল আর্টস) লাইটওয়েট চ্যাম্পিয়ন কোনর ম্যাকগ্রেগরের ছবি। যেখানে ২৭ বছরের লড়াকু নায়ক বলেছেন, ‘এখানে নেই কোনও প্রতিভা। রয়েছে কঠোর পরিশ্রম এবং সেরা হওয়ার তীব্র আসক্তি। সেটা না থাকলে শীর্ষে পৌঁছনো সম্ভব নয়। আমি প্রতিভাধর নই, পরিশ্রমে আসক্ত’।

ম্যাকগ্রেগরের সেই উক্তি-সহ ছবি পোস্ট করে কোহলি বলেছেন, ‘সেরা মানুষ, সেরা উক্তি এবং সত্যি কথা। অসামান্য এই কিংবদন্তিকে শ্রদ্ধা করি’।

কলের মিস্ত্রি হিসাবে জীবন শুরু করা কোনর অ্যান্থনি ম্যাকগ্রেগরের অভাবনীয় সাফল্যের পিছনে রয়েছে কঠিন জীবসংগ্রামের কাহিনি। দক্ষিণ ডাবলিনের শহরতলী ক্রামলিনের এক অভাবী পরিবার

থেকে উত্থান কোনরের।

পরিবারের সকলে ছিলেন ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের অন্ধ সমর্থক। ফলে ভবিষ্যতে ফুটবলকেই পেশা হিসাবে বেছে নিতে ছোট্ট কোনর স্কুল থেকে ফিরেই মাঠে নেমে পড়ত ফুটবল নিয়ে।

কিন্তু ফুটবল থেকে রাতারাতি দিশা বদলে ফেলার কারণ কী? সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ২৭ বছরের ইউএফসি চ্যাম্পিয়ন বলেছেন, ‘‘আমি চাইতাম অনেক লোকের সামনে নিজেকে মেলে ধরতে। সেই আসক্তি আমাকে নিয়ে এল এই জগতে।’’

ক্রামলিনের স্থানীয় বক্সিং ক্লাবে ভর্তি হয়ে যান ম্যাকগ্রেগর। শুরু হল নতুন লড়াই। পেশাদার বক্সার হিসাবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে তিনি ডুবে গেলেন কঠোর অনুশীলনে। ফলও মিলল হাতেনাতে। ক্লাবের হয়ে ১৯টি লড়াইয়ে চ্যাম্পিয়ন ১৭টিতে। তরুণ কোনর স্থির করে নিলেন জীবনের পথ। শুধু বক্সার নয়। নিজেকে মেলে ধরতে হবে এমএমএ ফাইটার হিসাবে। ম্যাকগ্রেগরের কথায়, ‘‘বক্সার হিসাবে শুরুতে সফল হলেও মনে মনে আমি এমএমএ ফাইটার হওয়ার স্বপ্নই দেখতাম। বলা যেতে পারে, সেটা একটা নেশার মতো হয়ে গিয়েছিল আমার জীবনে।’’

কিন্তু স্বপ্ন দেখা এবং বাস্তবের জমিতে লড়াই করে বেঁচে থাকার মধ্যে রয়েছে দূস্তর ব্যবধান। মিক্সড মার্শাল আর্টস চর্চার সঙ্গে জীবনধারণের জন্য নিতে হল কলের মিস্ত্রির কাজও। ‘‘ওই কাজ করতে ভাল না লাগলেও উপায় ছিল না,’’ বলেছেন তিনি। কিন্তু খুব বেশিদিন সেই পেশার সঙ্গে যুক্ত থাকতে হয়নি তাঁকে।

২০০৮ সালে এমএমএ পেশাদার মঞ্চে আত্মপ্রকাশ। শুরুর দিকে টানা তিন ম্যাচ হারের পর ভেঙে পড়েছিলেন কোনর। কিন্তু মনের জোর বজায় রেখে শুরু হল আরও নিবিড় প্রস্তুতি। ২০০৯ সালে ফিরে এলেন অন্য এক ম্যাকগ্রেগর। যিনি রিংয়ের মধ্যে চোখের পলকে ঘায়েল করে দিতে পারেন প্রতিপক্ষকে। শেষ ২৪টি যুদ্ধে জয়ী ২১টিতে।

আগ্রাসী ভারত অধিনায়কের পছন্দের সেরা নায়ক ম্যাকগ্রেগর ছাড়া আর কে-ই বা হতে পারেন!-

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View