Mountain View

পথে-প্রান্তরে…রংপুর মিঠাপুকুরে কাঠের সেতু ভেঙ্গে গেছে দুর্ভোগে লাখো মানুষ!

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৪, ২০১৬ at ৬:৫৩ অপরাহ্ণ

abcরংপুর ও গাইবান্ধার দু’উপজেলার যোগাযোগে ঘাঘট নদীতে নির্মিত কাঠের সেতুটি ভেঙ্গে যাওয়ায় লাখো মানুষ ১০ কিলোমিটার পথ ঘুরছে। ফলে জরুরী প্রয়োজন কিংবা নিত্যদিনের কাজ করতে ওই এলাকার মানুষজন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ওই দু’জেলার মিঠাপুকুর এবং সুন্দরগঞ্জ উপজেলার যোগাযোগ রক্ষায় মিঠাপুকুরের ইমাদপুর চকেরঘাটে ঘাঘট নদীতে সেতুটি নির্মিত হয়েছিল।

এলাকাবাসী জানায়, রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার সাথে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার যোগযোগের জন্য মিঠাপুকুরের ইমাদপুর চকেরঘাট নামকস্থানে ঘাঘট নদীর উপর এলাকাবাসীর উদ্যোগে ২০১৪ সালে একটি কাঠের সেতু নির্মান করা হয়। প্রায় ১’শ ফুট দৈর্ঘ্যরে সেতুটি নির্মানে ৫ লক্ষাধিক টাকা ব্যয় হয়েছিল। ওই সময় মিঠাপুকুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন ৬০ হাজার টাকাও দিয়েছিলেন।

সেতুটির উপর দিয়ে রোগী ও বিয়ের যাত্রী পরিবহনে কার-মাইক্রোবাসও চলাচল করতো। পাশাপাশি ওই এলাকার মির্জাপুর বছির উদ্দিন মহাবিদ্যালয়, মির্জাপুর উচ্চ বিদ্যালয়, ইমাদপুর ফাজিল মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরাও পারাপার হতো। এ ছাড়াও সেখানে ব্যাংক, বীমা, এনজিও রয়েছে। প্রায় ৩ বছর পর এ বছর সেতুটির পূর্বের প্রান্ত ভেঙ্গে গেলে উল্লেখিত দু’উপজেলার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ফলে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী বেকায়দায় পড়েন। এখন তাদেরকে প্রায় ১০ কি.মি পথ ঘুরে সুন্দরগঞ্জ, মির্জাপুর, শঠিবাড়ী ও মিঠাপুকুরে যাতায়াত করতে হচ্ছে। অপরদিকে নৌকা দিয়ে এলাকাবাসী পারাপারের ব্যবস্থা করেছে।

সেতুটি নির্মানের উদ্যোক্তা ইমাদপুর ইউপির সদস্য আব্দুস সালাম মিয়া, নদীপাড় এলাকার মিঠাপুকুরের আজিজুর রহমান, শাহাবুল হোসেন, লাজু, সাহেব মিয়া, শাহাজাদা মন্ডল, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের সাতগিরি গ্রামের প্রাইমারী বিদ্যালয়ের শিক্ষক আমজাদ হোসেন, মজিবর মাষ্টার, তোজাম্মেল হোসেন, আজগার আলী বলেন, আমরা ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে এই স্থানে একটি কাঠের সেতু নির্মান করেছিলাম। কিন্তু সেটি ভেঙ্গে গেছে।

এখানে সেতু নির্মিত হলে রংপুর-গাইবান্ধায় যাতায়াত সহজ হতো। পাশাপাশি রোগী পরিবহনসহ প্রয়োজনীয় সব কাজ দ্রুত করা সম্ভব হতো। মির্জাপুর বছির উদ্দিন মহাবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নন্দিতা রানী, শ্যামলী, ইশরাত জাহান, সোহেল রানা, পলাশ মিয়া জানায়, কাঠের সেতুটি ভেঙ্গে যাওয়ায় আমরা কলেজে যেতে পারছি না।

ইমাদপুর আদর্শপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাবিল মিয়া, পায়েল, নজরুল ইসলাম জানায়, আমরা অনেকেই সাতার জানি না। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নৌকায় করে যাতায়াত করছি। আমরা এখানে একটি ব্রীজ চাই। ইমাদপুর ইউপির চেয়ারম্যান আফছার আলী জানান, উল্লেখিত স্থানে একটি ব্রীজ নির্মানের ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের সভায় উত্থাপন করেছি। এখন ভেঙ্গে যাওয়া সেতুটি সংস্কার করা প্রয়োজন।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View