Mountain View

মেয়েদের ১৮ পুরুষদের ২১ বছর রেখেই বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন খসড়া অনুমোদন

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৪, ২০১৬ at ৬:৫০ অপরাহ্ণ

মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়স ১৮ বছরই রেখে ‘বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ২০১৬’-এর খসড়া অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভা। তবে বিশেষ ক্ষেত্রে অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়ের সর্বোত্তম স্বার্থে আদালতের নির্দেশনা নিয়ে এবং বাবা-মায়ের সমর্থনে বিয়ে হতে পারবে।
বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে তার কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে ‘বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ২০১৬’-এর খসড়া অনুমোদন করা হয়।
সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের জানান, মেয়েদের বিয়ের বয়স ১৮-ই আছে, আর পুরুষদের ২১। বিভিন্ন শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, জন্মনিবন্ধন সনদ বা পাসপোর্ট এগুলোর যেকোনো একটি বিয়ের বয়স নির্ধারণের ক্ষেত্রে বিবেচ্য হবে।
বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে বিভিন্ন অপরাধের ক্ষেত্র যেমন বাড়ানো হয়েছে, তেমনি সাজার মেয়াদও বাড়ানো হয়েছে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।
তিনি বলেন, নতুন আইনে বাল্যবিবাহের শাস্তি ও জরিমানার পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। বাল্যবিবাহ বন্ধে আদালতের নির্দেশ অমান্য করলে ছয় মাসের কারাদণ্ড কিংবা ১০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান রয়েছে আইনে। এছাড়া বাল্যবিবাহ-সংক্রান্ত বিষয়ে মিথ্যা অভিযোগ করলে ছয় মাসের কারাদণ্ড কিংবা ৩০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড হতে পারে।মা-বাবা আইন লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ দুই বছর কারাদণ্ড বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ড করা যাবে।
মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরো জানান, আইন অনুযায়ী, আদালত নিজ উদ্যোগে বা কারও অভিযোগের ভিত্তিতে বাল্যবিবাহ থামিয়ে দিতে পারবেন। এছাড়া দুজন অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলে বা মেয়ে বাল্যবিবাহ করলে তাদের ১৫ দিনের আটকাদেশ এবং অনধিক পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা যাবে। বিয়ে পড়ানোর সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা আইন না মানলে দুই বছর কারাদণ্ড বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কিংবা উভয় দণ্ড দেয়া যাবে।

এ সম্পর্কিত আরও