Mountain View

যে ম্যাচ থেকে বিপিএল কাঁপাবেন ক্রিস গেইল

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৪, ২০১৬ at ৮:১০ পূর্বাহ্ণ

20161124080611স্পোর্টস ডেস্ক: টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকা কে? প্রশ্ন করার আগেই উত্তর মুখে চলে আসে—ক্রিস গেইল। অথচ ক্যারিবিয়ান ‘ঝড়’কে ছাড়াই কিনা শেষ হয়ে গেল এবারের বিপিএলের ২৪টি ম্যাচ!

টি-টোয়েন্টির তারকা ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রতিবারই বিপিএলের আকর্ষণ হয়ে থাকেন দুজন খেলোয়াড়। একজন গেইল, আরেকজন শহীদ আফ্রিদি। রংপুর রাইডার্সের হয়ে দ্বিতীয়জন শুরু থেকেই খেলছেন। কিন্তু গেইল ছিলেন অনুপস্থিত। এই অসম্পূর্ণতাও এবার ঢেকে যাচ্ছে।

এর আগে বরিশাল বার্নার্স ও ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে খেলা টি-টোয়েন্টির রাজা চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে খেলতে ঢাকায় আসছেন কাল। সব ঠিক থাকলে ২৭ নভেম্বর মিরপুরে খেলবেন এবারের আসরে নিজের প্রথম ম্যাচ। টুর্নামেন্টের বাকি সব ম্যাচেই চিটাগংয়ের হয়ে খেলার কথা তাঁর।

গেইল এলে মধুর সমস্যায় পড়ে যাবে চিটাগং ভাইকিংসের টিম ম্যানেজমেন্ট। যে চার বিদেশিকে তারা খেলাচ্ছে, মাঠে সবার পারফরম্যান্সই উজ্জ্বল। ডোয়াইন স্মিথ ও শোয়েব মালিক গত ম্যাচে ফিফটি করেছেন। মোহাম্মদ নবী ব্যাটে-বলে দুভাবেই অবদান রাখছেন দলে। পেসার ইমরান খানকে ছাড়াও এখন একাদশ করার কথা ভাবতে পারছেন না অধিনায়ক তামিম ইকবাল। এক ম্যাচে সর্বোচ্চ চারজন বিদেশিই খেলানো যায় বলে গেইল এলে এদের কাউকে না কাউকে বসতেই হবে। কিন্তু কাকে বসাবেন তামিম ইকবাল?
মুঠোফোনে প্রশ্নটা করতেই চিটাগং ভাইকিংসের অধিনায়ক হেসে বললেন, ‘এটা কঠিন সিদ্ধান্ত। তবে একটা দলে যখন এ রকম পরিস্থিতি হয়, বুঝতে হবে দলটা ভালো অবস্থায় আছে। ম্যানেজমেন্ট নিশ্চয়ই ভেবেচিন্তে একটা সিদ্ধান্ত নেবে।’
গেইল চলে আসছেন। বিপিএলের সবচেয়ে চিত্তাকর্ষক লড়াইটা তাই দেখা যেতে পারে ২৭ নভেম্বর রাতেই। চিটাগং ভাইকিংস বনাম রংপুর রাইডার্স ম্যাচ। একদিকে ক্রিস গেইল, অন্যদিকে শহীদ আফ্রিদি। তিন ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে গিয়েছিল রংপুর। পয়েন্ট তালিকায় ছিল চতুর্থ স্থানে। চট্টগ্রামে তিন ম্যাচের তিনটিতেই জিতে এখন ছয় ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে তারাই শীর্ষে। রংপুরের এই সাফল্যে আফ্রিদির অবদানটা হয়তো আলাদা করে চোখে পড়ছে না। তবে অলরাউন্ডার হিসেবে প্রতি ম্যাচেই কিছু না কিছু করছেন তিনি।
টুর্নামেন্টের অন্য বড় তারকা বলতে ঢাকা ডায়নামাইটসের দুই সাবেক শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনে। পরেরজনকে তো এখন পর্যন্ত খেলানোই হয়েছে মাত্র একটি ম্যাচ। মিরপুরে রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে সে ম্যাচে ১১ রান করেছিলেন আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে একটি সেঞ্চুরির মালিক জয়াবর্ধনে। সাঙ্গাকারা সব ম্যাচই খেলেছেন। কিন্তু চট্টগ্রামে রাজশাহীর বিপক্ষে ৪৬ বলে ৬৬ রানের ইনিংসটি ছাড়া চেনা যায়নি তাঁকেও।

আফ্রিদি-সাঙ্গাকারাদের চেয়ে পিছিয়ে থাকা বিদেশিরাই বরং বেশি উজ্জ্বল এবার। চিটাগংয়ের মোহাম্মদ নবীর কথাই ধরুন। আট ম্যাচে ১৪ উইকেট নিয়ে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট এখন এই আফগান অলরাউন্ডারের। ১৯৬ রান করে তিনি আছেন সেরা দশ ব্যাটসম্যানের মধ্যে। সেরা দশ বোলারের মধ্যে এখন পর্যন্ত পাঁচজন বিদেশি থাকলেও সেরা দশ ব্যাটসম্যানের মধ্যে নবী ছাড়া আছেন শুধু রংপুরের মোহাম্মদ শেহজাদ। তা-ও সপ্তম অবস্থানে। শীর্ষ ছয় ব্যাটসম্যানই বাংলাদেশের।

টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত হওয়া একমাত্র সেঞ্চুরিটিও বাংলাদেশের সাব্বির রহমানের। তবে গেইলের ব্যাট থেকে আরও ঝোড়ো কিছুর আশা করাই যায়। বিপিএলের আগের আসরগুলোয় করা দুই সেঞ্চুরি তো বটেই, টি-টোয়েন্টিতেই তাঁর যেসব কীর্তি তাতেই জ্যামাইকান বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ২০ ওভারের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন হয়ে উঠেছেন। ১৮টি সেঞ্চুরিসহ ২৭২ ম্যাচে ৯৬৬৮ রান। চার-ছক্কাতেও অন্য সবার চেয়ে যোজন যোজন দূরে। এবার ঝড়টা কার ওপর দিয়ে যাবে কে জানে, তবু বিপিএল এখন গেইল-ঝড় দেখারই অপেক্ষায়।
সূত্র: প্রথম আলো

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View