ঢাকা : ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, রবিবার, ৪:২১ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

আপনার সন্তানের দিনটা কেমন গেল?

anaojanabd-600x330আপনি তো সরাদিনই ব্যস্ত থাকেন। দিনের শুরুতে অনেকেই রাশিফল দেখে বের হন। ভালো-মন্দ মিলিয়ে একটি দিন কেটে যায়। আবার ভালো-মন্দ অনেক সময় প্রিয়জনের সঙ্গে শেয়ারও হয়। কিন্তু শিশু সন্তানের সারাটা দিন কেমন গেল কিংবা তার ভালো লাগা-মন্দ লাগা কি আপনার সঙ্গে শেয়ার করছে? সন্তান স্কুল থেকে ফেরার পর বেশিরভাগ মা-ই জিজ্ঞাসা করেন, ‘আজকের দিনটা কেমন গেল?’ শিশু কাঁধ ঝাঁকিয়ে উত্তর দেয়, ‘ভালোই’। এতে কি আদৌ কিছু জানা গেল?

আজকের সব চেয়ে খারাপ কী হল

সন্তান বাড়ি ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে দিন কেমন গেল জিজ্ঞাসা না করে ওকে একটু জিরিয়ে নিতে দিন৷ তারপর গল্পের ছলে জিজ্ঞাসা করুন যে দিনের সবচেয়ে খারাপ অভিজ্ঞতা কী৷ এতে ওর সমস্যার কথা জানতে পারবেন খুব সহজেই৷ প্রথমে বলতে না চাইলেও আপনার সঙ্গে যদি ওর বন্ধুত্বটা জমজমাট হয় তাহলে ও আপনাকে সবটাই বলবে। আপনি নিজের অভিজ্ঞতা দিয়ে ওর সমস্যার সমাধান করে দিন৷ দেখবেন পরের বার থেকে সে নিজের সব সমস্যা আপনার সঙ্গেই ভাগ করে নেবে।

ভালো কী হল

সমস্যা তো মিটল। কিন্তু সন্তানের আনন্দের কথাটাও তো শুনতে হবে৷ কী কী কারণে তার আজকের ক্লাসগুলো ভালো লাগল সেগুলো জানার জন্য এই প্রশ্ন খুব ভালো৷ সন্তান আপনার সঙ্গে আনন্দের মুহূর্ত ভাগ করার সময় এটা জেনে আনন্দ পাবে যে ওর খুশিতে আপনিও খুশি।

মজা কেমন হল

খুশির মুহূর্ত জানার আরেকটা উপায় হল এই প্রশ্ন৷ তাছাড়া আপনার বাচ্চা কোন বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে মিশছে সেটাও বোঝা যাবে৷ পরবর্তীকালে স্কুলে গেলে ওর বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করে আলাপও জমিয়ে নিতে পারবেন।

টিফিনে কী হল

টিফিনের সময় মারামারিতে আপনার সন্তান অংশ নিল কিনা সেটা জানতে পারা যায় এই প্রশ্নের সাহায্যে৷ যদি ঝগড়াঝাঁটি হয়ে থাকে তখন সে প্রশ্নটি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে আপনি ভালো করে জিজ্ঞাসা করতেই পারেন মারপিট হল কিনা। তাহলে সেই অনুযায়ী আপনি তাকে শাসন করতে পারবেন৷ তবে বকাঝকা করবেন না৷ বুঝিয়ে বলুন৷ টিফিন ঠিকমত খেয়েছে কিনা সেটাও জানতে পারবেন।

কেউ কিছু বলল

অনেকসময় অনেক দুঃখ পাওয়া, না পাওয়া শিশুকে কষ্ট দেয়৷ শিশুও সহজাত নিয়মে সেটা নিজের মধ্যে চেপে রেখে কষ্ট পায়। এই ধরনের ঘটনা শিশুমনের জন্য মোটেই ভালো নয়। তাই কোনও কারণে ওর খারাপ লাগল কিনা সেটা জিজ্ঞেস করুন৷ দুঃখ ভাগ করে নিলে মন হালকা হয় সেটা তো আপনি জানেনই।

কী প্রজেক্ট নিল

সায়েন্স বা কম্পিউটার পরীক্ষায় শিশু কোন প্রজেক্ট বাছল সেটা জানলে শিশুর আগ্রহ সম্পর্কে ধারণা হবে। ফলে শিশু ভবিষ্যতে কোনদিকে যেতে চায় সেটা সম্পর্কে ধারণা মিলবে৷ তাহলেই ওর ভবিষ্যতের জন্য কতটা জমাতে হবে সেটাও ছকতে সুবিধা হবে।

কী কী শিখল

শিশু স্কুলে কী কী শিখল সেটা জানতে চান৷ তাহলে ও মনোযোগ দিয়ে পড়াশুনা করছে কিনা সেটা জানা সহজতর হয়ে যাবে৷ এই প্রশ্নটি ঘুরিয়েও করতে পারেন, ‘এমন কী কী শিখলি যেটা আমি জানি না?’ দেখবেন সে খুব আগ্রহ নিয়ে সব বলতে শুরু করবে।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

20161202_100329

প্রতিদিন ব্যবহারকৃত আপনার এই ৪টি জিনিসেই লুকিয়ে রয়েছে ক্যানসারের বীজ

লাইফ স্টাইল ডেস্কঃ ক্যানসার এমন একটি রোগ, যাকে নিশ্চিতভাবে সারাবার মতো ওষুধ এখনও চিকিৎসাবিজ্ঞানের অধরা। কাজেই …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *