ঢাকা : ২৮ জুলাই, ২০১৭, শুক্রবার, ৯:০৮ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / শীর্ষ সংবাদ / নির্বাচনে জালিয়াতির মাধ্যমে লক্ষাধিক ভোট পড়েছে

নির্বাচনে জালিয়াতির মাধ্যমে লক্ষাধিক ভোট পড়েছে

5b98547f01e724280381343886b06c64x600x400x43এবারের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে নাটকীয়তা যেন শেষই হচ্ছে না। তিনটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্যের ফলাফলে কারচুপির অভিযোগে ভোট পুনর্গণনার কথা চলছে। আনুষ্ঠানিক আবেদন করাও হয়েছে। এর প্রেক্ষিতে নতুন করে বোমা ফাটালেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। বিজয়ী প্রার্থী হয়েও, এবার তিনি নিজেই নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ তুললেন।

রোববার (২৭ নভেম্বর) এক টুইটার বার্তায় তিনি জানান, ‘৮ নভেম্বরের নির্বাচনে অবৈধভাবে লাখ লাখ ভোট দেওয়া হয়েছে। এসব ভোট গণনা থেকে বাদ দিলে, তিনিই সাধারণ ভোটারদের ভোটে (পপুলার ভোট) জয়ী হতেন। তাকে আর ইলেকটোরাল কলেজ ব্যবস্থার ওপর ভর করে জয় পেতে হতো না।’ যদিও এ দাবির স্বপক্ষে তিনি কোনো প্রমাণ দেননি।

ট্রাম্প লিখেন, ‘নির্বাচনে জিততে যদি ইলেক্টোরাল কলেজ পদ্ধতির পরিবর্তে জনপ্রিয় ভোট হিসেব করা হতো, তাহলে জয় পাওয়া আমার জন্য আরো অনেক সহজ হতো। তখন ১৫টি অঙ্গরাজ্যের বদলে তিন থেকে চারটি অঙ্গরাজ্যে প্রচারণা চালালেই, আমি জয় পেতাম।’

হিলারির জয় পাওয়া ভার্জিনিয়া, নিউহ্যাম্পশায়ার এবং ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের ফলাফলে ‘মারাত্মক ধরনের জালিয়াতি’ হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন ট্রাম্প। তার মতে, ‘এ ইস্যুতে মার্কিন গণমাধ্যম টু শব্দটি করছে না। কেননা গণমাধ্যম বরাবরই হিলারিকে সমর্থন দিয়ে এসেছে।’

এসময় তিনি ফলাফল মেনে নেওয়ার ক্ষেত্রে হিলারির পুরনো প্রতিশ্রুতির কথা তাকে স্মরণ করিয়ে দেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে নির্বাচনী প্রচারণায় কারচুপির আশঙ্কা করেছিলেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। হেরে গেলে ফলাফল বর্জনের কথাও শোনা গিয়েছিল তার কন্ঠে। কিন্তু পপুলার ভোটে পিছিয়ে থেকেও ইলেকটোরাল কলেজ ব্যবস্থার বদৌলতে শেষ হাসি হেসেছেন তিনিই। ৪৫তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ট্রাম্প।

নির্বাচনের পরে পেনসিলভানিয়া, উইসকনসিন ও মিশিগান অঙ্গরাজ্যের ফলাফলে বিদেশী হ্যাকাররা প্রভাব বিস্তারে সক্ষম হয়েছে, এমন অভিযোগ তুলে ভোট পুনর্গণনার জন্য অনলাইনে তহবিল সংগ্রহে নামেন গ্রিন পার্টির নেত্রী জিল স্টেইন। ইতিমধ্যে এ তহবিলে পঞ্চাশ লাখ ডলারের বেশি জমা পড়েছে। আনুষ্ঠানিক আবেদন করা হয়েছে উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যে। বাকি দুটি অঙ্গরাজ্যেও আবেদন প্রক্রিয়াধীন আছে। এবারের নির্বাচনে এ তিনটি অঙ্গরাজ্যেই ট্রাম্প জিতেছেন।

স্টেইনের এ আন্দোলনে সমর্থন দিয়েছে হিলারি ক্লিনটনের প্রচার শিবির। কেননা ইলেকটোরাল কলেজ ব্যবস্থার কাঁধে ভর করে ট্রাম্প নির্বাচনে জিতলেও, প্রায় বিশ লাখ পপুলার ভোটে হিলারি এগিয়ে রয়েছেন। হিলারি শিবিরের এমন উদ্যোগের প্রেক্ষিতেই ট্রাম্প নতুন করে কারচুপির এ অভিযোগ করলেন।

এ তিনটি অঙ্গরাজ্যের ফলাফল হিলারির পক্ষে গেলেও সামগ্রিক ফলাফলে কোনো পরিবর্তন হবে না।  কিন্তু অভিযোগ প্রমাণিত হলে দেশটির নির্বাচন ব্যবস্থার ত্রুটিগুলো সবার সামনে চলে আসবে। বিতর্কিত ইলেকটোরাল কলেজ ব্যবস্থা বাতিলের দাবি আরো জোরালো হবে।

সূত্র: বিবিসি

এ সম্পর্কিত আরও

আপনার-মন্তব্য