আটকে যাচ্ছে বিদেশি চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন!

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৯, ২০১৬ at ৫:৪৯ অপরাহ্ণ

0ccf8b71888c0b001e2a62ccc7eaadecx624x405x37বাংলাদেশের দর্শকদের জন্য বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেলে বিজ্ঞাপন বন্ধে আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূইয়া ডাকযোগে এ নোটিশ পাঠান।

জানা গেছে, বিদেশি চ্যানেল কেবল বাংলাদেশের জন্য আলাদাভাবে ডাউনলিংক এবং সেখানে বাংলাদেশি পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচারের কারণে অসম প্রতিযোগিতার মুখে পড়েছে দেশের বেসরকারি টেলিভিশনগুলো। এতে একদিকে এ দেশের টেলিভিশন দর্শক হারাচ্ছে, অন্যদিকে বিজ্ঞাপন চলে যাওয়ার কারণে দেশীয় চ্যানেলগুলোর আয় কমছে।

ভারতের জি ও স্টার গ্রুপের দুটি চ্যানেল ‘জি বাংলা’ ও ‘স্টার জলসা’ আলাদা বিমে বাংলাদেশে মাত্র ৩ লাখ টাকায় ডাউনলিংক করে কোটি কোটি টাকার বিজ্ঞাপন নিয়ে যাচ্ছে। বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের মালিকদের হিসাবে, এখন পর্যন্ত প্রায় ৭০ কোটি টাকার বিজ্ঞাপন পেয়েছে এ দুটি চ্যানেল। অন্যদিকে সরকারি হিসাবে এটা প্রায় ১৪ কোটি টাকা। অথচ বাংলাদেশ কেব্‌ল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক পরিচালনা আইন, ২০০৬-এর ১৯ (১৩) ধারায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশের দর্শকদের জন্য বিদেশি কোনো টিভি চ্যানেলের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে না।

কারণে ভারতের দুটি টেলিভিশন চ্যানেল এ দেশের দর্শকদের জন্য স্যাটেলাইটে আলাদা ‘বিম’ তৈরি করেছে। ফলে এই চ্যানেলে প্রচারিত অনুষ্ঠান বাংলাদেশে দেখা গেলেও ভারতে দেখা যায় না। একই অনুষ্ঠানের বিজ্ঞাপন বিরতিতে দুই দেশের লোক দুই রকম বিজ্ঞাপন দেখছে। এতে একটি চ্যানেল একই বিজ্ঞাপন বিরতিতে দুই দেশ থেকেই আয় করছে।

বিদেশি টেলিভিশন চ্যানেলে বিজ্ঞাপন বন্ধে আইনি নোটিশ জারি হওয়ায় এখন বিদেশি চ্যানেলে বাংলাদেশি বিজ্ঞাপনের প্রচার বন্ধ হতে পারে।  ফলে বিদেশি চ্যানেলগুলোর কৌশল বাংলাদেশের আইনের কাছে মার খেয়ে যাবে।  ইতোমধ্যে  তথ্যসচিব, বাণিজ্যসচিব, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বিটিআরসির চেয়ারম্যানসহ সাতজনকে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জবাব না দেওয়া হলে উচ্চ আদালতে আদালতে আইনের আশ্রয় নেওয়া হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়। এই আইন কার্যকরী হলেও বিদেশি চ্যানেলের বহুমুখী মুনাফা আটকে যাবে।

এ সম্পর্কিত আরও