কর প্রদানের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে সরাসরি সম্পৃক্ত হওয়ার আহবান

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৯, ২০১৬ at ৬:৫৫ অপরাহ্ণ

0ccf8b71888c0b001e2a62ccc7eaadecx624x405x37প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজস্বকে উন্নয়নের অক্সিজেন উল্লেখ করে সবাইকে সঠিকভাবে কর প্রদানের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে সরাসরি সম্পৃক্ত হওয়ার আহবান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন,‘ উন্নয়নের অক্সিজেন রাজস্ব। তাই আসুন, আমরা সঠিকভাবে কর প্রদানের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে সরাসরি সম্পৃক্ত হই। সবাই মিলে সরকারের রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে একটি সেবামুখী, ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলি। প্রতিষ্ঠা করি জাতির পিতার স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’।’
শেখ হাসিনা আগামীকাল আয়কর দিবস উপলক্ষে আজ দেয়া এক বাণীতে এ আহবান জানান।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের উদ্যোগে যথাযোগ্য মর্যাদায় আগামীকাল ‘আয়কর দিবস’ পালিত হবে। দিবসটি উদ্যাপন উপলক্ষে তিনি দেশের সম্মানিত সকল করদাতা এবং কর বিভাগের সাথে সংশ্লিষ্টদের অভিনন্দন জানান।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড ‘সুশাসন ও উন্নততর ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি’ নীতি অনুসরণ করে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে কাজ করছে। অংশীজনদের সাথে নিবিড় সম্পর্ক ও করদাতাবান্ধব পরিবেশ তৈরির লক্ষ্যে চলমান বিভিন্ন উদ্ভাবনী কর্মসূচির ধারাবাহিকতায় প্রথমবারের মতো ২৪ থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আয়কর সপ্তাহ পালন করেছে।
এছাড়াও গত ২৪ নভেম্বর সর্বোচ্চ ও দীর্ঘমেয়াদি করদাতাদের সম্মানিত করার লক্ষ্যে সম্মাননা ও ট্যাক্স কার্ড প্রদান করা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
শেখ হাসিনা বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাবলম্বী বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ১৯৭২ সালে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড গঠন করেন। রাজস্ব ভা-ারকে সমৃদ্ধ করার মাধ্যমে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড বর্তমান সরকারের কর্মসূচি বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
দেশে রাজস্ববান্ধব সংস্কৃতি গড়ার লক্ষ্যে রাজস্ব বোর্ডের বিভিন্ন উদ্ভাবনী কর্মসূচির ছোঁয়া জাতীয় পর্যায় থেকে গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে জনগণকে করসেবা প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। চলতি বছরের ১ থেকে ৭ নভেম্বর পর্যন্ত দেশব্যাপী ১৫০টি স্থানে আয়কর মেলা উদ্যাপিত হয়েছে।
তিনি বলেন, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাও এবার আয়কর মেলায় যুক্ত হয়েছে। ফলে আমাদের ভবিষ্যৎ করদাতারাও কর প্রদানের সংস্কৃতির সাথে যুক্ত থাকছে, যা আমাদের সকলের জন্যে একটি সুখকর বার্তা।

এ সম্পর্কিত আরও