Mountain View

খুলনার ব্যবসায়ীকে হত্যা করে লাশ ফেলা হয় গৌরনদীতে

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ২৯, ২০১৬ at ৫:২৮ অপরাহ্ণ

dscn0514ব্যবসায়ীক লেনদেনের বিরোধের জেরধরে খুলনার খালিশপুর শহরের বাসিন্দা ও ব্যবসায়ী রহমাতুল্লাহ রনিকে (৩৬) পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে বরিশালের গৌরনদীতে লাশ ফেলে রাখা হয়।
 
সূত্রমতে, ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদী পৌর এলাকার টরকীর নীলখোলা ব্রিজের নিচের খাল থেকে রবিবার সন্ধ্যায় অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। মুহুর্তের মধ্যে লাশের ছবি ছড়িয়ে পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। ওই ছবি দেখে নিখোঁজ ব্যবসায়ী রনির ছোটভাই মেহেদী হাসান লাশটি তার ভাইয়ের দাবি করে সোমবার রাতে সে (মেহেদী) গৌরনদী থানায় ছুটে আসেন। পরবর্তীতে উদ্ধার হওয়া লাশটি তার নিখোঁজ বড় ভাই ব্যবসায়ী রহমাতুল্লাহ রনির লাশ হিসেবে সনাক্ত করেন।
 
মেহেদী হাসানের উদ্বৃতি দিয়ে গৌরনদী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আফজাল হোসেন জানান, গত ২৫ নভেম্বর পাওনা টাকা আদায়ের কথা বলে খুলনার খালিশপুর শহরের বাসিন্দা ও ব্যবসায়ী রহমাতুল্লাহ রনি নিজ বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন
তাকে অনেক খোঁজাখুজি করেও না পেয়ে গত ২৭ নভেম্বর রনির স্বজনরা খালিশপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। এরইমধ্যে রবিবার সন্ধ্যায় গৌরনদীর নীলখোলা ব্রিজের নিচের খাল থেকে অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। মুহুর্তের মধ্যে লাশের ছবি ছড়িয়ে পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। ওই ছবি দেখে নিখোঁজ ব্যবসায়ী রনির ছোটভাই মেহেদী হাসান সোমবার রাতে গৌরনদী থানায় উপস্থিত হয়ে লাশটি তার ভাইয়ের বলে দাবি করেন।
 
নিহত রহমাতুল্লাহ রনির ছোট ভাই মেহেদী হাসান অভিযোগ করে বলেন, ব্যবসায়ীক লেনদেনের বিরোধের জেরধরে তার ভাই রহমাতুল্লাহ রনিকে হত্যা করে লাশ গুমের জন্য গৌরনদীতে এনে ফেলা হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

এ সম্পর্কিত আরও

Mountain View