ঢাকা : ২২ জুন, ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ৮:২৯ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

ব্যাঙ্কের লাইনে দাঁড়িয়েই প্রধানমন্ত্রী মোদিকে অসহায় তরুণী টুইট

0ccf8b71888c0b001e2a62ccc7eaadecx624x405x37আন্তর্জাতিক ডেস্ক :বাড়িতে বাবার ক্যান্সার। কিন্তু ব্যাঙ্কের লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে বাবার চিকিৎসার জন্য টাকাও তুলতে পারছেন না। বাধ্য হয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে টুইট করে নিজের অসহায়তার কথা জানালেন উত্তরপ্রদেশের আগ্রার বাসিন্দা ২৫ বছরের এক তরুণী। একই সঙ্গে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবকেও টুইট করেছেন তিনি।

একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি দৈনিকে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, জুহি প্রকাশ নামে ওই তরুণীর বাবা মুখের ক্যান্সারে আক্রান্ত। কিন্তু বাড়িতে জুহি ছাড়া তার বাবাকে দেখার কেউই নেই। জুহির মা তিন বছর আগে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েই মারা যান। ফলে বাবাকে সুস্থ করে তুলতে মরিয়া এই তরুণী। জুহিদের পরিবারের আর্থিক অবস্থা একসময়ে ভালই ছিল। বাবার জুতোর ব্যবসাও

ভাল চলতো। কিন্তু মায়ের চিকিৎসা করাতে গিয়ে পরিবারটি সর্বস্বান্ত হয়।

জমানো সব টাকাই জুহির মায়ের চিকিৎসার পিছনে খরচ হয়ে গিয়েছে। জুহির দুই ভাইয়ের মধ্যে একজন অসুস্থ হয়ে হরিদ্বারের একটি আশ্রমে চিকিৎসাধানী। আর এক ভাই বেসরকারি চাকরি করেন। তার পক্ষেও অফিস কামাই করে ব্যাঙ্কে লাইন দেওয়া সম্ভব নয়। কারণ, তার উপার্জনেই এখন সংসার চলে। ওই তরুণীর দাবি, ব্যাঙ্কের লাইনে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করা তার পক্ষে সম্ভব নয়, যেহেতু বাড়িতে তার বাবাকে দেখার কেউ নেই।

টাকার অভাবে বাবার অস্ত্রোপচার করানো যায়নি। কিন্তু ওষুধের পিছনে মাসে ছয় থেকে সাত হাজার টাকা খরচ হয়। সেই টাকাও এখন ব্যাঙ্ক থেকে তুলতে পারছেন না তিনি। বাধ্য হয়েই তাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের সাহায্য চেয়েছেন জুহি।

ভাল কাজ করতে গেলে একটু কষ্ট সহ্য করতে হবে বলে বারবারই অনুরোধ করছেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু দেশে দুর্নীতি কমানোটা যেমন প্রয়োজন, জুহির কাছে তার বাবার ওষুধের জন্য টাকা তোলাটাও একই ভাবে প্রয়োজনীয়। ফলে দেশের ভালর সঙ্গে এক অসহায় তরুণীর পাশে কি দাঁড়াবেন প্রধানমন্ত্রী? রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে নিজের রাজ্যের বাসিন্দা জুহির সাহায্যে কি এগিয়ে আসবেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব? সেটাই এখন দেখার।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী বা উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী তাকে সাহায্য করবেন কি না জানা নেই। কিন্তু টুইটারে এই জুহির সমস্যার কথা জেনে অনেকেই তাকে সাহায্য করার প্রস্তাব দিয়েছেন।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

নির্যাতিতাকে থানায় ডেকে যা করলেন পুলিশ অফিসার!

দুই পরিচিতের থেকে চূড়ান্ত সম্মানহানি। গণধর্ষণের পর পুলিশের কাছে জুটল আরও লাঞ্ছনা। নির্যাতিতাকে থানার তদন্তকারী …

আপনার-মন্তব্য