কিটকট অর্ধেক বিনা মূল্যে ব্যবহারের ব্যবস্থার নির্দেশ

প্রকাশিতঃ নভেম্বর ৩০, ২০১৬ at ৯:০৫ অপরাহ্ণ

received_341044489604527-300x225কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে থাকা ছাতা চেয়ারের  ৫০ শতাংশ সাধারণ মানুষের জন্য সংরক্ষণ করতে বলেছেন উচ্চ আদালত। এই অংশটুকু সাধারণ মানুষের জন্য বিনা মূল্যে ব্যবহারের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রতি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এগুলোকে কিটকট বলা হয়।

বুধবার বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী ও বিচারপতি শেখ হাসান আরিফের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুলসহ অন্তর্বর্তীকালীন এ আদেশ দেন। রুলে কিটকট ছাতার ব্যবহারের অনুমতির ওপর সমুদ্রসৈকত ব্যবস্থাপনা কমিটি কর্তৃক বার্ষিক নবায়ন ফি বাড়ানো কেন বেআইনি হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে বিধি-নীতিমালা অনুসরণ ছাড়া এর ওপর ট্যাক্স ও ফি আরোপ কেন আইনগত কর্তৃত্ববহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না, তা-ও জানতে চাওয়া হয়েছে। বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটনসচিব, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান, কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র ও পুলিশ সুপারসহ বিবাদীদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এ সময় আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. মোখলেছুর রহমান। তিনি পরে প্রথম আলোকে বলেন, ওই সব ছাতা চেয়ার ব্যবহারের অনুমতির ওপর অযৌক্তিকভাবে ভাড়া বাড়ানো হচ্ছে। নিয়মনীতি ছাড়া কর ও ফি আরোপ করা হচ্ছে—এ বিষয়টি নজরে এলে আদালত স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে ওই আদেশ দেন।

রাষ্ট্রের এই আইন কর্মকর্তা বলেন, সৈকতে থাকা ৫০ শতাংশ ছাতা চেয়ার সাধারণ জনগণের জন্য বিনা মূল্যে ব্যবহারের জন্য উন্মুখ রাখতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটনসচিব, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসকসহ (সমুদ্রসৈকত ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি) চারজনের প্রতি ওই নির্দেশ দেওয়া হয়। চার সপ্তাহের মধ্যে বিবাদীদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও