ঢাকা : ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, শনিবার, ৯:৩৫ অপরাহ্ণ
সর্বশেষ
রাজধানীতে শিক্ষকের অমানবিক নির্যাতনে শিশু শিক্ষার্থী আহত মধ্যবর্তী নির্বাচন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বললেন ‘স্বপ্ন দেখা ভালো’ এখনো বেঁচে আছি, এটাই গুরুত্বপূর্ণ : প্রধানমন্ত্রী আলাদা বিমান কেনার মতো বিলাসিতা করার সময় আসেনি: প্রধানমন্ত্রী চলছে স্প্যানের লোড টেস্ট দৃশ্যমান হতে চলেছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হতে পারে! ১৭ বছর বয়সী আফিফ নেট থেকে মাঠে অত:পর গেইলদের গুড়িয়ে দিলেন (ভিডিও) রংপুর জেতায় ছিটকে গেলো কুমিল্লা-বরিশাল আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ইরাকে নিরাপত্তা বাহিনীর ১৯৫৯ সদস্য নিহত দুটি নৌকা, ২২ রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠাল বিজিবি
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site

এবার সামাজিক মাধ্যমের ছবিতেও ম্যালওয়ার!

500x350_658a64c4b265945be1325974fb6b78e8_20_8_2টুইটার, ফেসবুক আর লিংকডইনের মত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো যেন আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অংশ হয়ে গেছে। তাই অন্য যে কোনো ওয়েবসাইটের তুলনায় হ্যাকার কিংবা প্রযুক্তি অপরাধীদের সবচেয়ে বেশি পছন্দের প্ল্যাটফর্ম এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো।

প্রযুক্তির খোঁজখবর যারা রাখেন বা ব্যবহার করেন এতদিন তারা কেবল এসব সাইটে ভাইরাস বা ম্যালওয়ার ছড়ানোর ঘটনা ঘটছে তা জানতো। কিন্তু এখন সেই কাজ করা হচ্ছে আর চতুরতার সঙ্গে। কারণ ব্যবহারকারীরা যেহেতু বুঝে গেছে কোন কোন লিংক আসলে ভাইরাস, তাই হ্যাকারদের আগের পদ্ধতি এখন আর তেমন কাজে আসছে না।

আর এজন্যই এখন ম্যালওয়ার ছড়াতে নতুন পদ্ধতির আশ্রয় নিয়েছে ইন্টারনেট অপরাধীরা। ব্যবহারকারীদের ধোঁকা দিতে খুব সূক্ষ্মভাবে করা হচ্ছে সেই কাজ। এবার তারা ছবির সাহায্যে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে দিচ্ছে নতুন ধরনের এক ম্যালওয়ার।

এই ম্যালওয়ার অদৃশ্য ভাইরাস কিংবা ট্রোজেন ভাইরাস অথবা ছায়া ভাইরাসের তুলনায় অনেক বেশি শক্তিশালী এবং ব্যবহারকারীকে সহজেই ধোঁকা দিতে সক্ষম। ব্যবহারকারীর কম্পিউটারে ভাইরাস ঢুকানোর নতুন এই পদ্ধতির নাম দেয়া হচ্ছে ‘ইমেজ গেট’। কারণ এখানে একটি ছবি কম্পিউটারে ভাইরাস ঢুকানোর মাধ্যম হিসেবে কাজ করছে। নানা ধরনের আকর্ষণীয় ছবি হ্যাকাররা এখন ফেসবুক, টুইটার আর লিংকডইনের মত জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিচ্ছে।

বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে সেসব ছবি কাউকে কাউকে ম্যাসেজও করে দিচ্ছে। এই ছবিতে আকৃষ্ট হয়ে যদি কেউ তা ডাউনলোড করে তারপর ওপেন করে তাহলেই সব শেষ।

কেননা ছবিটি খোলার সাথে সাথে এর সাথে থাকা পেলোড ফাইলটি ভাইরাস হিসেবে কাজ করা শুরু করে দেয়। আর এ ঘটনা আক্রান্ত ব্যক্তি যখন বুঝতে পারেন তখন অনেক দেরি হয়ে যায়।

এই ম্যালওয়ার ভাইরাসটি এতটাই শক্তিশালী যে তাৎক্ষণিকভাবে নিরাময়ের জন্য কোন কিছুই করার থাকে না ব্যবহারকারীর। তাই আপাতত সাবধানতা অবলম্বন করা ছাড়া আর কোন পরামর্শ দেননি প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা।

এ সম্পর্কিত আরও

Check Also

unnamed

নোট সেভেনের ভরাডুবিতে চাপের মুখে দুভাগ হচ্ছে স্যামসাং

নোট সেভেনের ভরাডুবির পর বিনিয়োগকারীদের চাপের মুখে পড়ে স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স কোম্পানির কার্যক্রমকে দুভাগে ভাগ করার …

Mountain View

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *