ঢাকা : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, বুধবার, ২:১০ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ > অর্থনীতি > এক দশকে সর্বোচ্চে এশিয়ার শেয়ারবাজার

এক দশকে সর্বোচ্চে এশিয়ার শেয়ারবাজার

এক দশকে সর্বোচ্চে এশিয়ার শেয়ারবাজার
আন্তর্জাতিক বাজারের চাঙ্গাভাবের সুবাদে এক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে এশিয়ার শেয়ারবাজার। পাশাপাশি বৈশ্বিক শেয়ারবাজারও লেনদেনে ঊর্ধ্বগতি বজায় রেখেছে। মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যপূরণ নিয়ে পুরোপুরি নিশ্চিত না হওয়ায় বুধবারের বৈঠকে সুদের হার অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ (ফেড)। তবে শিগগিরই ব্যালান্স শিট সংকোচনের প্রক্রিয়া শুরুর আভাস দিয়েছে ব্যাংকটি। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ সিদ্ধান্তের প্রভাবে গতকাল এশিয়ার শেয়ারসূচকগুলো প্রায় এক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চে পৌঁছে যায়। বিপরীতে ডলারের মান আবারো কমে ১৪ মাসের সর্বনিম্নে দাঁড়িয়েছে।

ফেডের সিদ্ধান্ত ঘোষণার প্রভাবে গতকাল এমএসসিআইয়ের এশিয়ার সংকলিত সূচক (জাপান বাদে) ১ শতাংশ বেড়ে যায়। ২০০৭ সালের ডিসেম্বরের পর সূচকটিতে এতটা ঊর্ধ্বগতি দেখা যায়নি। সব মিলিয়ে চলতি মাসে এমএসসিআই সূচকটি ৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেল। জাপানের নিক্কেই দশমিক ১৫ বৃদ্ধি পেয়েছে। ফিলিপাইনের শেয়ারসূচকও এক বছরের মধ্যে সর্বোচ্চে অবস্থান দেখা গেছে। এছাড়া এসঅ্যান্ডপি৫০০ দশমিক ২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ইউরোটক্স৫০ সূচকেও বেশ চাঙ্গাভাব লক্ষ করা গেছে। সেই সঙ্গে চীনের ব্লু-চিপ কোম্পানিগুলোর সূচক সিএসআই৩০০ আগের নিম্নমুখিতার ধাক্কা সামলে দশমিক ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পায় গতকাল। মূলত শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোর মুনাফা প্রবৃদ্ধিই কোম্পানিগুলোর শেয়ারে প্রভাব রেখেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সার্বিক ও কোর মূল্যস্ফীতি উভয় ক্ষেত্রেই নিম্নমুখী ভাব বিরাজ করছে। শিগগিরই তা পরিবর্তিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। তবে বন্ড হোল্ডিং হ্রাসের প্রক্রিয়া শিগগিরই শুরু হবে। সেপ্টেম্বর থেকেই তা শুরু হওয়ার জোর প্রত্যাশা করা হচ্ছে। ফেডের পরবর্তী নীতিনির্ধারণী বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে ১৯-২০ সেপ্টেম্বরে।

ডয়েচে ব্যাংকের ফরেক্স বিভাগের বৈশ্বিক প্রধান অ্যালান রাসকিন বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে ডলার সবচেয়ে সংকটে রয়েছে। দীর্ঘ সময় ধরেই স্থানীয় মুদ্রার মান বৃদ্ধিতে সহায়তা করতে পারছে না ফেড।

এদিকে ফেডের সাম্প্রতিকতম সিদ্ধান্তে এশিয়ার শেয়ারবাজার চাঙ্গা হয়ে উঠলেও মুদ্রাবাজারে সবচেয়ে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ফেডের সুদের হার অপরিবর্তিত রাখার ঘোষণার পর মার্কিন ডলার ও ১০ বছর মেয়াদি মার্কিন ট্রেজারির ইল্ডে পতন ঘটেছে। ডলারের বিপরীতে অন্য শীর্ষ মুদ্রাগুলোর মান আবার শক্তিশালী হয়ে উঠেছে।

এ সম্পর্কিত আরও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *