ঢাকা : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, বুধবার, ১:৫৫ পূর্বাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ > খেলাধুলা > ২ ম্যাচের অফ ফর্মে বাদ মুমিনুল ৬ ম্যাচে রান না পেলেও সৌম্যে আস্থা!

২ ম্যাচের অফ ফর্মে বাদ মুমিনুল ৬ ম্যাচে রান না পেলেও সৌম্যে আস্থা!

ক্রিকেটারদের বাজে ফর্ম, জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া, কারো সুযোগ না পাওয়ার বিষয়ে বহুবারই সংবাদ সম্মেলনে তির্যক প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছে নির্বাচকদের। গতকাল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের জন্য দল ঘোষণা করতে এসে রীতিমতো উত্তপ্ত উনুনের মুখেই যেন পড়েছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। সাংবাদিকদের প্রশ্নবাণে জর্জরিত হয়ে রীতিমতো মেজাজ হারিয়ে বসেছিলেন তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে মুহুর্মুহু প্রশ্নের তীর ছুটেছে নির্বাচক প্যানেলের সদস্য ও হেড কোচ চন্ডিকা হাতুরুসিংহের দিকে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ২৭ মিনিট দীর্ঘ সংবাদ সম্মেলনের সিংহভাগ প্রশ্ন হয়েছে মুমিনুল হককে নিয়ে। এক ক্রিকেটারকে নিয়ে এত প্রশ্নে কোচের চোখেমুখেও বিরক্তির ছায়া ফুটে উঠেছিল।
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের জন্য গতকাল ঘোষিত ১৪ সদস্যের দলে জায়গা হয়নি মুমিনুলের। অথচ কয়েক বছরে সাদা পোশাকে দেশের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান এ বাঁহাতি। মুমিনুলের বাদ পড়ার কারণ হিসেবে প্রধান নির্বাচক বলেছেন, পারফরম্যান্সের অধোগতি।
মিনহাজুল আবেদীন নান্নু গতকাল বলেছেন, ‘সামগ্রিক পারফরম্যান্সের জন্য মুমিনুল বাদ। ও যেই জায়গা ব্যাট করছে সেই জায়গায় সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েস ভালো করছে। সৌম্যর আট টেস্টের চারটিতে ফিফটি রয়েছে। ওর গড় ৪৫ দশমিক ৭৫।  এ কারণে মুমিনুল বিবেচনার নিচে চলে গেছে। এছাড়া ঘরের মাঠে ইমরুলের পারফরম্যান্সও যথেষ্ট ভালো।’
বিসিবি সূত্র জানিয়েছে, মূলত হাতুরুসিংহের অনিচ্ছাতেই বাদ পড়েছেন মুমিনুল। নির্বাচকরা চাইলেও কোচ রাজি না হওয়ায় এ যাত্রা দলের বাইরেই থাকতে হলো এ তরুণ ব্যাটসম্যানকে। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে মিনহাজুল আবেদীন নান্নুও পরোক্ষভাবে সেই ইঙ্গিতই করলেন।
তিনি বলেন, ‘কিছু খেলোয়াড়ের পজিশন কিন্তু টিম ম্যানেজম্যান্ট ঠিক করে। এটা সিলেকশন থেকে কিন্তু যায় না। টিম ম্যানেজম্যান্টের একটা পরিকল্পনা থাকে, হেড কোচের একটা চাওয়া থাকে। সেই অনুযায়ী কিন্তু আমাদের কাজ করতে হয়।’
তিনি আরো বলেন, ‘টিম ম্যানেজম্যান্টের সঙ্গে আলোচনা করেই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। কোচও নির্বাচক প্যানেলের অন্তর্ভুক্ত। একজন খেলোয়াড়কে নিয়ে যদি এভাবে জিজ্ঞেস করা হয় তাহলে কিন্তু উত্তর দেয়া সম্ভব না।’
ভারত ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলা শেষ দুই টেস্টে বড় রান নেই মুমিনুলের। ঠিক আগের টেস্টেই অবশ্য নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ৬৮ রান করেছিলেন তিনি। পরপর দুই ম্যাচে রান না করায় ২৫ বছর বয়সী এ ব্যাটসম্যানের বাদ পড়াকে দুর্ভাগ্যজনক বলতে রাজি নন প্রধান নির্বাচক।
মুমিনুলকে বাদ দেয়ার ব্যাখ্যায় সাম্প্রতিক সময়ের পরিসংখ্যানও তুলে ধরেছেন মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে যে পরিসংখ্যান আছে জানুয়ারি থেকে শ্রীলঙ্কা সিরিজ পর্যন্ত ছয় ইনিংসে ওর একটি মাত্র ফিফটি। এ পারফরম্যান্সের জন্য মুমিনুল নেই।’
বাস্তবতা হলো- ওই ম্যাচগুলো ছিল সবই দেশের বাইরে। এবার সিরিজ হবে দেশের মাটিতে। যেখানে মুমিনুলই বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান। ২২ টেস্টের ক্যারিয়ারে ৪৬দশমিক ৮৮ গড়ে  ১ হাজার ৬৮৮ রান করেছেন তিনি। দেশের মাটিতে তার ব্যাটিং গড় আরো ঈর্ষণীয়, ৫৮ দশমিক ০৯। চার সেঞ্চুরির সবকটিই ঘরের মাঠেই করেছেন তিনি।
অন্যদিকে গত ১ বছর ধরে ধুকতে থাকা সৌম্য সরকারে আস্থার কোন কমতি নেই। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে সুপার ফ্লপ সৌম্যকে নিয়ে অারও বেশি সুযোগে দেয়ার পক্ষপাতি হাতুরু সিং ও নান্নু।

এ সম্পর্কিত আরও