ঢাকা : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, মঙ্গলবার, ৮:৪২ অপরাহ্ণ
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
প্রচ্ছদ > আইন-আদালত > আলোচিত ৭ খুন মামলার রায়ের অপেক্ষায় স্বজন ও নারায়ণগঞ্জবাসী

আলোচিত ৭ খুন মামলার রায়ের অপেক্ষায় স্বজন ও নারায়ণগঞ্জবাসী

নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত ৭ খুন মামলার ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের রায় ঘোষণা করা হবে আজ। আর এ রায়কে কেন্দ্র করে এখন অপেক্ষার প্রহর গুণছে নিহতদের পরিবার। একই সঙ্গে রায় শোনার অপেক্ষায় পুরো নারায়ণগঞ্জবাসী।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের সাজা কার্যকরের অনুমতি (ডেথ রেফারেন্স) এবং আসামিদের আপিল শুনানি শেষে ২৬ জুলাই আদালত রায়ের জন্য ১৩ আগস্ট দিন ঠিক করে দিয়েছিলেন। কিন্তু ওইদিন রায় ঘোষণা করা হয়নি। আদালত রায় ঘোষণার জন্য ২২ আগস্ট নতুন তারিখ ধার্য করেন।

এর আগে চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি এই মামলায় ২৬ জনের ফাঁসির আদেশ এবং ৯ জনকে ৭ থেকে ১০ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়ে রায় ঘোষণা করেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক সৈয়দ এনায়েত হোসেন।

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার রায়ে উল্লসিত হয়েছিল নারায়ণগঞ্জের সাধারণ মানুষ। ওইদিন আদালত চত্বরের সামনে অবস্থান নিয়েছিল হাজারো মানুষ। রায়ের সংবাদে উল্লাস প্রকাশ করেন তারা।

আজ এ মামলার ডেথ রেফারেন্স ও হাইকোর্টের রায়। তাই তাদের আশা, রায়ে দোষীদের সর্বোচ্চ সাজা ফাঁসি বহাল থাকবে এবং রায় দ্রুত কার্যকর করা হবে।

নিহত সিরাজুল ইসলাম লিটনের ভাই রফিক বলেন, ‘ফাঁসির রায় হয়েছে। তা এখন সারাদেশের মানুষ জানে। আমরাও চাই এ রায় উচ্চ আদালতে বহাল থাকবে। সব আসামির দ্রুত রায় কার্যকর করা হবে। তাহলে মন থেকে একটু শান্তি পাব যে, আমার ভাইয়ের হত্যার বিচার আমরা পেয়েছি।’

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বাংলা বলেন, ‘আশা করি, বিচারিক আদালতে যে রায় হয়েছে, উচ্চ আদালতের ডেথ রেফারেন্সেও সেই রায় বহাল থাকবে। তাহলেই নারায়ণগঞ্জবাসী খুশি হবে।’

২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোডের ফতুল্লার লামাপাড়া থেকে সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, আইনজীবী চন্দন সরকারসহ ৭ জনকে অপহরণ করা হয়। তিনদিন পর শীতলক্ষ্যা নদীতে তাদের লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় নিহত নজরুলের স্ত্রী বিউটি ও চন্দন সরকারের জামাতা বিজয় কুমার পাল দুটি মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় দীর্ঘ শুনানির পর চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি সেনাবাহিনীর বরখাস্তকৃত লে. কর্নেল তারেক সাঈদ মোহাম্মদ, সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর নূর হোসেনসহ ২৬ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেয় নারায়ণগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেন। বাকি ৯ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে দণ্ড দেয়া হয়।

এ সম্পর্কিত আরও